অবশেষে সিলেটের বিপক্ষে জ্বলে উঠলেন ওয়াটসন

প্রকাশিত: ১০:১৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৩, ২০২০

অবশেষে সিলেটের বিপক্ষে জ্বলে উঠলেন ওয়াটসন

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ভরাডুবির পথে থাকা দলকে উদ্ধার করতে তাকে নিয়ে আসা হয়েছিল অনেক আশায়। দেওয়া হয়েছে নেতৃত্ব। কিন্তু এসে তিনি নিজেও ডুবে গেলেন ব্যর্থতার আঁধারে। টানা চার ম্যাচে দুই অঙ্কের দেখাই পেলেন না! অবশেষে সেই ব্যর্থতার জাল ছিড়ে বের হতে পারলেন শেন ওয়াটসন। অধিনায়কের বিধ্বংসী ব্যাটিং রংপুরকে নিয়ে গেছে বড় স্কোরের পথে।

 

ওয়াটসনের এই রানে ফেরা অবশ্য সিলেটের দর্শকদের উপভোগ করার কথা নয়। স্থানীয় দলের বিপক্ষেই তো এই ইনিংস! সিলেটে শুক্রবার (০৩ ডিসেম্বর) দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে সিলেট থান্ডারের বিপক্ষে ২০ ওভারে ১৯৯ রান তুলেছে রংপুর রেঞ্জার্স।

 

৬ চার ও ৫ ছক্কায় ৩৬ বলে ৬৮ করেছেন ওয়াটসন। টুর্নামেন্টে আগের চার ম্যাচে রংপুর অধিনায়কের রান ছিল ৫, ১, ৭ ও ২।

 

রংপুরের বড় স্কোরের ভিত গড়া হয় মোহাম্মদ নাঈমের সঙ্গে ওয়াটসনের উদ্বোধনী জুটিতে। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা দলের হয়ে আক্রমণের শুরুটা ছিল নাঈমের ব্যাটে।

 

ক্রিশমার সান্টোকির প্রথম ওভারে দুটি বাউন্ডারির পর পরের ওভারে ইবাদত হোসেনকে টানা দুই বলে নাঈম মারেন চার ও ছক্কা। ওয়াটসন সেভাবে স্ট্রাইকই পাচ্ছিলেন না তখন। পঞ্চম ওভারে অফ স্পিনার নাঈম হাসানের টানা চার বলে দুই করে ছক্কা ও চারে ছুটতে শুরু করেন ওয়াটসন। পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে রংপুর তোলে ৬৩ রান।

 

টুর্নামেন্টের আরও বেশ কয়েকটি ইনিংসের মতো এদিনও ভালো শুরুটাকে বড় ইনিংসে রূপ দিতে পারেননি নাঈম। মনির হোসেনের বাঁহাতি স্পিনে ছক্কা মারতে গিয়ে আউট হন ৩৩ বলে ৪২ করে।

 

রংপুরের তাতে সমস্যা হয়নি। দ্বিতীয় উইকেটে ক্যামেরন দেলপোর্তের সঙ্গে জুটি গড়ে তোলেন ওয়াটসন।

 

প্রথম ১০ ওভারে মাত্র ২০টি বল খেলতে পেরেছিলেন ওয়াটসন। পরে স্ট্রাইক পেয়ে জ্বলে ওঠেন। তার ইনিংস শেষ হয় ইবাদতের অসাধারণ ইয়র্কারে।

 

দুই দলের আগের লড়াইয়ে নতুন বলে ইবাদতের ইয়র্কারে বোল্ড হয়েছিলেন ওয়াটসন। এবার ডেলিভারিটি ছিল আরও নিখুঁত। থিতু হয়ে যাওয়া ওয়াটসনও কিছু করতে পারেননি, মাঠ ছাড়েন হতাশায় মাথা নেড়ে। জুটির আরেক ব্যাটসম্যান দেলপোর্তকেও (১৮ বলে ২৫) ফেরান ইবাদত।

 

শেষ দিকে মোহাম্মদ নবির ১৭ বলে ২৩ ও ফজলে মাহমুদ রাব্বির ৮ বলে ১৬ রান রংপুরকে নিয়ে যায় দুইশর কাছে। সান্টোকির করা শেষ ওভার থেকে আসে ২৬ রান।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

রংপুর রেঞ্জার্স:  ২০ ওভারে ১৯৯/৫ (নাঈম ৪২, ওয়াটসন ৬৮, দেলপোর্ত ২৫, গ্রেগোরি ১৫, নবি ২৩, ফজলে মাহমুদ ১৬*, আল আমিন ০*; সান্টোকি ৪-০-৫৬-১, ইবাদত ৪-০-৩০-২, রাদারফোর্ড ৪-০-২৮-১, নাঈম ১-০-২১-০, মনির ৪-০-২৫-১, সোহাগ ৩-০-৩৪-০)।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com