প্রচ্ছদ

ঈদ যাত্রায় জনদুর্ভোগ : ওবায়দুল কাদেরের দুঃখ প্রকাশ

১২ আগস্ট ২০১৯, ০৩:১৪

সুরমা মেইল ডেস্ক

রোববার ঈদ যাত্রার শেষ দিনে রেলস্টেশন, বাস টার্মিনাল ও সদরঘাট লঞ্চ টার্মিনালে ঘরমুখী মানুষের উপচেপড়া ভিড় অব্যাহত রয়েছে। তবে গত তিন দিনের তুলনায় যাত্রীচাপ কিছুটা কম থাকলেও সকাল থেকেই রেলস্টেশন, বাস টার্মিনাল ও লঞ্চ টার্মিনালে গরমে ঠাসাঠাসি করে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে থেকে বিশেষ করে নারী ও শিশুরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছে। লোকে লোকারণ্য হওয়া স্বল্প পরিসরে বিশ্রামের জায়গা যেমন নেই তেমনি সংকট চলছে শৌচাগার সুবিধার।

ঈদযাত্রার শেষ দিনেও শিডিউল বিপর্যয়ে পড়েছে ট্রেন। রাজধানীর কমলাপুর থেকে প্রায় প্রতিটি ট্রেন নির্ধারিত সময়ের পরে স্টেশন ছেড়ে যাচ্ছে। সবচেয়ে বেশি শিডিউল বিপর্যয়ে পড়েছে উত্তরাঞ্চলের ট্রেনগুলোতে। এর মধ্যে বাতিল করা হয়েছে লালমণি ঈদ স্পেশাল ট্রেনটি।

সদর ঘাট লঞ্চ টার্মিনালেও ঘরমুখো যাত্রীদের প্রচণ্ড ভিড়। ভোর ৬টা থেকে লঞ্চ ছাড়া শুরু হলেও যাত্রীরা লঞ্চে ওঠার জন্য অপেক্ষা করছেন গভীর রাত থেকে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে যাত্রীদের চাপ। টার্মিনাল, পন্টুন, লঞ্চের কেবিন, ডেক ও ছাদ কানায় কানায় ভরে গেছে মানুষে। অতিরিক্ত চাপ সামলাতে সময়ের আগেই ছেড়ে যাচ্ছে লঞ্চগুলো।

এদিকে ঈদ যাত্রায় মানুষের দুর্ভোগের কথা স্বীকার করে এই প্রথমবারের মতো একজন মন্ত্রী তার ব্যর্থতার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

রোববার (১১ আগষ্ট) সকালে রাজধানীর সায়দাবাদ টার্মিনালে ঈদযাত্রা পর্যবেক্ষণে এসে সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বৈরী আবহাওয়া ও পশুবাহী গাড়ির কারণে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। তবে ঢাকা সিলেট, ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে কোনো ভোগান্তি হয়নি। কেবল ঢাকা টাঙ্গাইল মহাসড়কের কিছু অংশে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। সারা দেশে পরিস্থিতি ভালো ছিল। একটিমাত্র রুটের একটি অংশে দুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। সে কারণে টার্মিনালেও খানিক দুর্ভোগ হয়েছে।

এর আগে গত শনিবার আওয়ামী লীগের মূখপাত্র এ মন্ত্রী বলেছেন, “বাংলাদেশের মানুষ ঈদ যাত্রায় যে দুর্ভোগ সেটাকে দুর্ভোগ হিসেবে মনে করে না। এটা তারা ঈদ আনন্দের অংশ হিসেবে মনে করে। তিনি এবারের ঈদ যাত্রাকে স্বস্তিদায়ক বলে দাবি করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com