এক সাথে ১৪০ শিশু বলি!

প্রকাশিত: ২:০৪ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ৩০, ২০১৮

এক সাথে ১৪০ শিশু বলি!

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি শিশু বলি দেয়ার ঘটনা ঘটেছিল সাড়ে ৫০০ বছর আগে পেরুতে। দেশটির ওয়ানচাকিতো-লাস-ইয়ামাস নামে পরিচিত প্রাচীন এক মন্দিরে এই বলি দেয়ার ঘটনা ঘটে।

দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় উপকূলীয় এলাকায় এক সাথে ১৪০ জনের বেশি শিশু ও দুই শতাধিক লামা দেবতার উদ্দেশে উৎসর্গ করা হয়।

প্রত্নতাত্ত্বিকরা বলেছেন, প্রাচীন চিম সভ্যতার কেন্দ্রস্থলের কাছে ত্রুজিলো শহরে এ বলি দেওয়ার ঘটনা ঘটে। মানব-ইতিহাসে এ ঘটনাকে সবচেয়ে বেশি শিশু বলির ঘটনা বলে মনে করা হচ্ছে। চিম সভ্যতার লোকজন চন্দ্র দেবতার পূজা করতো।

প্রশান্ত মহাসাগর সংলগ্ন লা লিবার্টাডের একটি বাঁধের ধারে উদ্ধার করা হয়েছে ইতিহাসের এই সাক্ষীকে। ওই অঞ্চলেই গড়ে উঠেছিল চিমু সভ্যতা। পেরুর তৃতীয় বৃহত্তম শহর রুজিলোর অদূরেই অবস্থিত এই অঞ্চল।

ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক জানিয়েছে, স্পেনের ঔপনিবেশিক যুগে অ্যাজটেক, মায়া ও ইনকা সভ্যতায় মানুষ বলি দেয়ার নজির নিয়ে আগেই নানা নথি তৈরি হয়েছে। তবে চিমু সভ্যতায় এই বিশাল পরিমাণ শিশু বলির প্রমাণ আবিষ্কার হওয়ায় তা আমেরিকা ও গোটা বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে।

ন্যাশনার জিওগ্রাফিকের গ্যাব্রিয়েল প্রিয়েতোর নেতৃত্বাধীন একটি দলের অভিযানে ইতিহাসের এই নয়া দিকের আবিষ্কার হয়েছে। ২০১১ সালে ৩,৫০০ বছরের পুরনো একটি মন্দিরের কাছ থেকে ৪২টি শিশু ও ৭৬টি লামার দেহাবশেষ উদ্ধারের পরই এই অভিযান শুরু করে দলটি।

সবশেষে গত সপ্তাহে চূড়ান্ত হিসাব পাওয়া যায়। সেখানে দেখা যায়, বলি দেওয়া ১৪০ জন শিশুর বয়স ছিল ৫ থেকে ১৪ বছর। তবে বেশির ভাগেরই বয়স ছিল ৮ থেকে ১২ বছরের মধ্যে। লামাগুলোর বয়স ছিল ১৮ মাসেরও কম। এদের আন্দিজ পর্বতমালার দিকে মুখ করে কবর দেয়া হয়।

খননকারীরা ধারণা করছেন, খরাপীড়িত এই এলাকায় বৃষ্টি ও বন্যার জন্য এই উৎসর্গ করা হয়েছে। ওই স্থানে পাওয়া পোশাকের কার্বন পরীক্ষা করে দেখা যায়, ঘটনাটি ১৪০০ থেকে ১৪৫০ সালের মধ্যে সংঘটিত হয়। সূত্র: বিবিসি ও এনডিটিভির

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com