ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে নেই মাশরাফি!

প্রকাশিত: ১১:২২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৩০, ২০১৮

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে নেই মাশরাফি!

বেশ কিছুদিন থেকেই জোর গুঞ্জন- ‘আবার টেস্টে ফিরছেন মাশরাফি’। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও তার টেস্ট দলে ফেরা নিয়ে কথা বলেছেন। অধিনায়ক সাকিব আল হাসানও মাশরাফিকে টেস্ট দলে পেতে আগ্রহী! তাই তো সবাই আগ্রহ টাইগারদের আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের দল নিয়ে। হয়তো আগামী জুনের এই সিরিজেই সাদা পোষাকে ফিরবেন মাশরাফি!

কিন্তু  ভক্তদের জন্য দুঃসংবাদ হলো, আবার টেস্টে ফেরা বহুদূর, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে দলেই মাশরাফিকে নিয়ে তৈরি হয়েছে ধুম্রজাল।

অন্যান্য বিদেশ সফরের মত ওয়েষ্ট ইন্ডিজ সফরকে সামনে রেখে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয় যে সরকারি অনুমতি (গভর্নমেন্ট অর্ডার বা জিও) পত্র দিয়েছে, সেখানে নাম নেই মাশরাফির। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সহকারি সচিব তৌফিক ইমাম স্বাক্ষরিত ওই অনুমতি পত্রে ২২ জন ক্রিকেটারের নাম রয়েছে। যাদের সবাই টেস্ট, ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের সম্ভাব্য স্কোয়াডে জায়গা পাবার মত।

ফুটবল, ক্রিকেট, হকি, সাঁতার, শ্যুটিং কিংবা অ্যাথলেটিক…যেকোন জাতীয় দল বিদেশ সফরের আগে সরকারী অনুমতি প্রয়োজন। এটা ভিসা পাবার ক্ষেত্রে সবচেয়ে কার্যকর দলিল বলে গণ্য হয়। সে জন্যই বিভিন্ন সময় বিদেশে সিরিজ খেলতে যাওয়ার আগে ক্রিকেট দলও সরকারী অনুমতিপত্র (জিও) নেয়। এবারও ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরকে সামনে রেখে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে অনুমতি চায় বিসিবি এবং বিসিবির দেয়া খেলোয়াড় তালিকা দেখেই ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে অনুমতি পত্র পাঠানো হয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে যে ২২ ক্রিকেটারের নামে সরকারি অনুমতি পত্র এসেছে, সেখানে মাশরাফির নাম নেই।

সেই জিও‘তে মাশরাফির নাম না থাকায় উঠেছে নানা প্রশ্ন। এদিকে এসব প্রশ্নের জবাব খুঁজতে বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দীন সুজনের সাথে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তার কাছে বারবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। জানা গেছে তিনি অসুস্থ।

তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফির নাম না থাকার কারণ অজ্ঞাতই থেকে গেছে।

এদিকে কেউ হয়তো ভাবতে পারেন, যেহেতু আগে টেস্ট তারপর ওয়ানডে এবং সবশেষে টি টোয়েন্টি সিরিজ- তাই মাশরাফির নাম রাখা হয়নি। তবে সে প্রশ্ন হবে অবান্তর। কারণ যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয় থেকে যে সরকারি অনুমতি দেয়া হয়েছে তার শিরোনামে পরিষ্কার বলা হয়েছে, ‘আগামী ২৪ জুন থেকে ৬ আগস্ট ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠেয় দুটি টেস্ট, তিনটি একদিনের (ওডিআই) এবং তিনটি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট সিরিজে অংশগ্রহণের জন্য বাংলাদেশ দলের ২২ সদস্যর সরকারি অনুমতি পত্র।’

তবে, জিও-তে শুধু ২২ ক্রিকেটারের নাম আছে। কোচ কোর্টনি ওয়ালশ, ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়ন, ফিজিও এবং ম্যানেজার হিসেবে কারো নাম নেই সেখানে। সুতরাং, সেখানে একটা ফাক-ফোঁকর রয়েই গেছে।

তাই ভক্তরা আশা করতে পারেন, যেহেতু দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের পর ওয়ানডে সিরিজ। তাই পরে কোচ, সহকারি কোচ, বোলিং কোচ, ফিজিও, ট্রেনার এবং ম্যানেজারের সাথে মাশরাফিরও জিও করানো হবে।

যাদের নামে জিও করা হয়েছে, সেই ২২ ক্রিকেটার হলেন 
সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহীম, সাব্বির রহমান (রোমান), মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মুমিনুল হক, আফিফ হোসেন, আরিফুল হক, মেহেদি হাসান মিরাজ, নুরুল হাসান সোহান, নাজমুল ইসলাম অপু, রুবেল হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, শফিউল ইসলাম, সাইফউদ্দীন, আবুল হাসান (রাজু) , আবু হায়দার (রনি), আবু জায়েদ চৌধুরী (রাহি)। সূত্র : জাগো নিউজ

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com