প্রচ্ছদ

কানাইঘাটে নির্বাচন পরবর্তী সন্ত্রাসী হামলা অব্যাহত

০১ জানুয়ারি ২০১৯, ১৪:৩২

কানাইঘাট প্রতিনিধি

সিলেটের কানাইঘাটে বিএনপি-জামায়াত ও জোট জমিয়তের নেতাকর্মীরা নির্বাচন পরবর্তী আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের উপর সন্ত্রাসী হামলা অব্যাহত রেখেছে বলে দাবী করেছেন আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দ।

সোমবার (৩১ ডিসেম্বর) বিকাল ৩টায় কানাইঘাট বাজারে নৌকার প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন উপজেলা আওয়ামীলীগ ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক লুৎফুর রহমান।

এ সময় তিনি বলেন, কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশিক উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা বিএনপির সভাপতি মামুন রশিদ ও বিএনপি নেতা নিজাম উদ্দিনের নির্দেশে নির্বাচনের পূর্ব থেকে পরবর্তী সময় পর্যন্ত তাদের সন্ত্রাসী নেতাকর্মীরা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের উপর হামলা অব্যাহত রেখেছে।

তিনি উল্লেখ করে বলেন, গত ২৮ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৮ টায় উপজেলার সুরইঘাট বাজারে নৌকার নির্বাচনী অফিসে বোমা হামলা, নির্বাচনের দিন সকাল ১১ টায় নিজ চাউরা ভোট কেন্দ্রে তারা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের উপর হামলা করে এমনকি ভোট দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে বড়কান্দি গ্রামের আওয়ামীলীগ নেতা খলিলুর রহমান ও তার সন্তানদের উপর হামলা করা হয়।

এছাড়াও কালীনগর, মনসুরিয়া, গোসাইনপুর, ছোট দেশ, উমরগঞ্জ, হারাতৈল ভোট কেন্দ্রে বিএনপি জামায়াতের নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। তাদের এ হামলায় পুর্ব আগফৌদ গ্রামের মাহমুদ হোসেনের পুত্র আব্দুর রহমান, ইউসুফ আলীর পুত্র হরুহুনা, বড়কান্দি গ্রামের মৃত বশির আহমদের পুত্র মখলিছ আহমদ, ইব্রাহিম আলীর পুত্র খলিল আহমদ, খলিল আহমদের পুত্র গিয়াছ আহমদ, সেবুল আহমদ, হারাতৈল গ্রামের তৈয়ব আলীর পুত্র হারিছ উদ্দিন, জামিল আহমদ, হোসেন আহমদের পুত্র এম কাওসার আহমদ, কাজির পাতন গ্রামের ওয়াজিদ আলীর পুত্র শাহিন আহমদ, সামাদ মিয়ার পুত্র আলী আহমদ, আব্দুল হকের পুত্র জলিল আহমদ গুরুত্বর আহত হয়।

তাদের মধ্যে অনেকেই সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে তিনি সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন।

সোমবার ভাটিবারাপৈত গ্রামের দুলন চন্দ্রের বাড়ি ও আওয়ামীলীগ কর্মী শরীফ উদ্দিনের দোকান ভাংচুর করা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে হামলার সাথে জড়িত বিএনপি, জামাত ও জোট জমিয়তের সন্ত্রসীদের গ্রেফতারের দাবী জানান তারা। অন্যতায় প্রশাসন এর দায়ভার বহন করবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামীলীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাতবাঁক ইউপির চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ পলাশ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, পৌর আওয়ামীলীগের আহবায়ক জামাল উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক শ্রী রিংকু চক্রবর্তী, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি’র চেয়ারম্যান জেমস লিও ফারগুশন নানকা, চতুল ইউপি আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান মুবশি^র আলী, আওয়ামীলীগ নেতা হুসেন আহমদ, জেলা পরিষদের সদস্য আলমাছ উদ্দিন, কানাইঘাট বাজার বনিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক যুবলীগ নেতা আব্দুল হেকিম শামীম, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক গিয়াছ উদ্দিন, পৌর আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহবায়ক নাজমুল ইসলাম হারুন, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক শাহাব উদ্দিন, কাউন্সিলর মাসুক আহমদ, উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহবায়ক মাসুক আহমদ, আওয়ামীলীগ নেতা জাকির হোসেন জাকারিয়া, জাকারিয়া আহমদ জামিল সহ আওয়ামীলীগের অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com