কানাডা প্রবাসী সিলেটের তামিম চৌধুরীকে খুঁজছে পুলিশ

প্রকাশিত: ২:৫১ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০১৬

কানাডা প্রবাসী সিলেটের তামিম চৌধুরীকে খুঁজছে পুলিশ

28294

সুরমা মেইল নিউজ : রাজধানীর গুলশানে জঙ্গি হামলার পরিকল্পনাকারীদের অন্যতম কানাডা প্রবাসী সিলেটের তামিম চৌধুরীকে খুঁজছে পুলিশ।

জঙ্গি সংগঠনে কর্মী সংগ্রহ, জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধকরণ এবং অর্থের যোগানদাতাদের অন্যতম এই তামিম চৌধুরী। কল্যাণপুরের জঙ্গি আস্তানায় তার নিয়মিত যাতায়াত ছিল বলে পুলিশ জানাতে পেরেছে।

শুক্রবার পুলিশের কাউন্টার টেররিজম বিভাগের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, গুলশানে রেস্তোরাঁয় হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী তামিম চৌধুরী। কল্যাণপুরের জঙ্গি আস্তানায় তামিম চৌধুরীসহ কয়েকজন যাতায়াত করতেন বলে ওই বাসা থেকে গ্রেপ্তার জঙ্গি হাসান জানিয়েছে।

তিনি বলেন, তামিম চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তার ব্যাপারে অনেক তথ্য এসেছে। এ সব তথ্য গ্রেপ্তার জঙ্গিরা জানিয়েছে।

পুলিশের একটি সূত্র বলছে, কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানায় পুলিশ অভিযানের পর গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেপ্তার জঙ্গি রাকিবুল হাসান ওরফে রিগ্যান জানিয়েছে- এজাহারভুক্ত আসামি তামিম চৌধুরী ও অজ্ঞাতনামা অনেকে তাদের কল্যাণপুরের ফ্ল্যাটে আসতেন। ধর্মীয় বিষয়ে বলতেন এবং জিহাদে উদ্বুদ্ধ করতেন। তারা প্রয়োজনীয় টাকা-পয়সা দিয়ে যেতেন।

তামিম চৌধুরীকে খুঁজতে দেশব্যাপী ব্যাপক গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

শুক্রবার মিরপুর থানায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানায় পুলিশের অভিযান এবং পুলিশের ওপর জঙ্গিদের হামলার ঘটনায় এজাহারভুক্ত আসামি তামিম চৌধুরী ছাড়া বাকিরা হলেন- ইকবাল, রিপন, খালেদ, মামুন, মানিক, জোনায়েদ খান, বাদল, আজাদুল ওরফে কবিরাজ। রাকিবুল হাসানের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তাদের আসামি করা হয়েছে। মামলাটি মিরপুর মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (অপারেশন) মো. শাহজালাল আলম বাদী হয়ে দায়ের করেন।

গত ১ জুলাই রাতে গুলশানের হলি আর্টিজন বেকারীতে জঙ্গিরা সশস্ত্র হামলা চালিয়ে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জিম্মিকে হত্যা করে। পরে কমান্ডো অভিযানে পাঁচ জঙ্গিসহ ছয়জনের মৃত্যু হয়। জঙ্গিদের গুলিতে পুলিশের দুই কর্মকর্তা নিহত হন। পরে পুলিশ বাদী হয়ে সন্ত্রাস দমন আইনে গুলশান থানায় মামলা করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com