কিউইদের বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ টাইগাররা

প্রকাশিত: ২:৫৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৬, ২০২১

কিউইদের বিপক্ষে হোয়াইটওয়াশ টাইগাররা

খেলাধুলা ডেস্ক : এবারও নতুন করে ইতিহাস গড়া হলো না বাংলাদেশের। ব্যর্থতায় ভরপুর ব্যাটিংয়ে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে ১৬৪ রানের বিশাল ব্যবধানে হেরেছে টাইগাররা। আর এতেই নিশ্চিত হয়েছে হোয়াইটওয়াশ। ঘরের মাঠে তিন ম্যাচের সবকটিতে জিতে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করল নিউজিল্যান্ড।

 

ওয়েলিংটনে বেসিন রিজার্ভের উইকেটে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে বাংলাদেশি বোলারদের তোপের মুখে পড়ে নিউজিল্যান্ড। উইকেটের ফায়দা তুলে নিয়ে তাসকিন-রুবেলের পেস আগ্রাসন ছিল চোখের প্রশান্তি। বিশেষ করে তাসকিনের গতি-বাউন্স-লাইন লেন্থের সামনে কিউই ব্যাটসম্যানদের হাপিত্যেশ ছিল দেখার মতো। এমনকি উইকেটের পেছনে মুশফিকুর রহিমও খাবি খাচ্ছিলেন বল ধরতে।

 

দুর্দান্ত বোলিংয়ে ১১ ওভার আর ৫৭ রানের মধ্যেই কিউইদের তিন সেরা ব্যাটসম্যান হেনরি নিকোলস (১৮), মার্টিন গাপটিল (২৬)  ও রস টেলরকে (৭) রানে প্যাভিলিয়নের রাস্তা ধরিয়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের আয়ত্ত্বেই নিয়ে নিয়েছিল বাংলাদেশ। সেখান থেকে অধিনায়ক টম লাথাম ও ডেভন কনওয়ের ৬৩ রানের জুটিতে ম্যাচে ফিরে স্বাগতিকরা। ১৮ রান করে সৌম্যের বলে দারুণ এক ক্যাচে পরিণত হয়ে ফিরে যান লাথাম।

 

এরপরই উইকেটে আসেন ড্যারিল মিচেল। উইকেটে থাকা কনওয়েকে সঙ্গী করে গড়ে তুলেন প্রতিরোধ। পঞ্চম উইকেটে তাদের ১৫৯ রানের জুটিতে বড় সংগ্রহের পথে পা বাড়ায় নিউজিল্যান্ড। মোস্তাফিজুর রহমানের শিকার হয়ে কনওয়ে ফিরলে ভাঙে এই জুটি। তবে এর আগে দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে যান তিনি। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের তৃতীয় ম্যাচে এসেই দেখা পেয়েছেন সেঞ্চুরি।

 

১৭ চারের মারে ১১০ বলে খেলেছেন ১২৬ রানের ইনিংস। আরেক ব্যাটসম্যান ড্যারিল মিচেলেও অপরাজিত থেকেই মাঠ ছাড়েন। হাঁকান সেঞ্চুরিও। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে তৃতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেই দ্বিতীয় ইনিংসেই পেয়েছেন সেঞ্চুরির দেখা। ৯ চার ও ২ ছক্কায় ৯২ বলে খেলেন ১০০ রানের ঝড়ো ইনিংস। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩১৮।

 

বাংলাদেশের হয়ে রুবেল হোসেন ১০ ওভার বল করে ১ মেইডেনসহ ৭০ রান খরচায় ৩টি উইকেট শিকার করেন। তাসকিন আহমেদ ১ মেইডেনসহ ৫২ রানে ১টি উইকেট লাভ করেন। মুশফিকুর রহিম উইকেটের পেছনে ক্যাচ মিস না করলে, তার নামের পাশে থাকতে পারত আরও উইকেট। এছাড়া সৌম্য সরকার ৮ ওভার বল করে ৩৭ রান খরচায় ১টি উইকেট নেন। তবে মোস্তাফিজুর রহমান ১ উইকেট নিলেও, খরচ করেছেন ৮৭ রান।

 

৩১৯ রানের বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৫০ রান পেরোনোর আগেই প্রথম সারির চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। ম্যাট হেনরির পেস তোপে একে তামিম ইকবাল (১), সৌম্য সরকার (১) ও লিটন দাস (২১)। চার নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৩৯ বল খেলে উইকেটে ভালোভাবেই টিকে গিয়েছিলেন মোহাম্মদ মিঠুন। কিন্তু জেমিইসনের বলে মিচেল স্যান্টনারের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে মাত্র ৬ রানেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান এই ব্যাটসম্যান।

 

দলীয় ৭৭ রানে উইকেটে সেট হয়ে যাওয়া আরেক তারকা মুশফিকুর রহিমও বিদায় নেন। জিমি নিশামের বলে উইকেট বিলিয়ে দেওয়ার আগে ৪৪ বল খেলে ১ চারের মারে ২১ রান করে যান এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। মুশফিক আউট পরের বলেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন মেহেদী হাসান মিরাজ। সেই জিমি নিশামের বলে ডেভন কনওয়ের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে আসেন তিনি।

 

এরপর উইকেটে এসে বেশি সময় টিকতে পারেননি মেহেদী হাসানও। ৮ বলে ৩ রান করে ফিরে নিশামের তৃতীয় শিকার হয়ে ফিরেছেন এই তরুণ ক্রিকেটার। সপ্তম উইকেটে তাসকিনের সাথে ১৮ রানের একটি জুটি তৈরি করে দলের একশ পার করেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ২৪ বলে ৯ রান করে তাসকিন ফিরে যাওয়ার পর, মাহমুদউল্লাহ জুটি গড়েন রুবেল হোসেনের সাথে।

 

তাদের দারুণ জুটিতে দেড়শ পার করে বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহ পান ক্যারিয়ারের ২৩তম ওয়ানডে ফিফটির দেখা। রুবেল হোসেন যোগ্য দিয়ে সঙ্গ দিয়ে গেছেন মাহমুদউল্লাহকে। ফিফটি হাঁকিয়ে সেঞ্চুরির পথে ভালোভাবেই ছিলেন তিনি। তবে জিমি নিশামের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ তুলে দিয়ে রুবেল ফিরলে দলের সর্বোচ্চ ৫২ রানের জুটি ভেঙে যায় আর মাহমুদউল্লাহর সেঞ্চুরির আশাও ভঙ্গ হয়। উইকেটে এসে ৩ বল খেলে সেই নিশামের বলেই এলডব্লিউর শিকার হন মোস্তাফিজুর রহমান। ৪৫ বল বাকি থাকতেই বাংলাদেশের ইনিংসে গুঁটিয়ে যায় ১৫৪ রানেই। মাহমুদউল্লাহ অপরাজিত থাকেন ৭৩ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৭৬ রান করে।

 

নিউজিল্যান্ডের হয়ে ৭.৪ ওভার বল করে মাত্র ২৭ রান খরচায় ৫ উইকেট নিয়ে ক্যারিয়ারের সেরা বোলিংয়ের দেখা পান নিশাম। এই নিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো ওয়ানডেতে পাঁচ উইকেট লাভ করেন তিনি। এছাড়া দুর্দান্ত বোলিং করেন ম্যাট হেনরিও। ১০ ওভার বল করে ২ মেইডেনসহ ২৭ রানে ৪টি উইকেট লাভ করেন তিনি। বাংলাদেশের টপ অর্ডারে ধস নামান এই হেনরিই।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

Flag Counter

আমাদের ভিজিটর সংখ্যা

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com