ক্যাটস্ আই বা বৈদূর্যমণি ও এর উপকারিতা

প্রকাশিত: ৬:৪৯ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০

ক্যাটস্ আই বা বৈদূর্যমণি ও এর উপকারিতা

ক্যাটস্ আই একটি চকচকে উজ্জ্বল রত্ন। রত্নটির উপরি তলে উজ্জ্বল আলো সুতার মতো দাগ সৃষ্টি করে যা দেখতে অনেকটা বিড়ালের চোখের মতো দেখায় দেখে একে ইংরেজিতে ক্যাটস্ আই বাংলায় বৈদূর্যমণি আরবীতে লহসনিয়া বলে। সাধারণত আমরা কছেশ বর্ণের ক্যাটস্ আই দেখতে পাই সাদা, সবুজ, হলুদ ও ছাই রঙ্গের।

ক্যাটস্ আই ক্রাইসোবেরিল জাতীয় রত্ন। ক্রাইসোবেরিল বেরিলিয়াম অ্যালুমিনিয়াম অক্সাইডের সংমিশ্রণ। আয়রনের অণুর মিশ্রণে এটিকে কিছুটা মধুর মতো দেখা যেতে পারে। রাসায়নিক ঘটনে সিলিকন, ম্যাগনেসিয়াম ও বেরিলিয়ামের সংমিশ্রণ দেখা যাবে। এ রত্নের কাঠিন্য ৮.৫ প্রায়। আপেক্ষিক গুরুত্ব ৩.৭০-৩.৭২ পর্যন্ত। আলোর প্রতিসরণ ১.৭৪-১.৭৫। সাধারণত ভারত, শ্রীলঙ্কা, চীন, ব্রাজিল, থাইল্যান্ড প্রভৃতি দেশে ক্যাটস্ আই পাওয়া যায়।  উপকারিতা: জ্যোতিষ শাস্ত্রে ক্যাটস্ আই একটি গুরুত্বপূর্ণ রত্ন। যখনই জন্ম ছকে কেতুর অশুভ অবস্থান বা গোচরকালে অবস্থান হয়ে থাকে যার ফলে হঠাৎ করেই জীবনে রহস্যজনক বাধা বিপত্তি,ব্যবসায় অব্যাহত লোকসান, অংশীদারি কাজে ভুল বোঝাবুঝি, আইনগত জটিলতার সৃষ্টি, দাম্পত্য অশান্তি, আর্থিক ব্যবস্থাপনায় অনিয়ম ও অতিরিক্ত ব্যয়, কর্মস্থলে অকারণ গোপন শত্রুতা, দুর্নাম বদনাম, নীচু শ্রেণির পুরুষ নারীর দ্বারা অর্থক্ষতি হতে থাকে তখনই অভিজ্ঞ জ্যোতিষীগণ ক্যাটস্ আই ধারণের পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এছাড়াও যাদের তান্ত্রিক অপপ্রয়োগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়,তাদের ক্ষেত্রে রত্নটি কার্যকর হিসেবে প্রতীয়মান হয়ে থাকে। যখন স্বামী স্ত্রীর দাম্পত্য জীবনে পরকীয়া সংক্রান্ত কারণে সংসারে বিচ্ছেদ অবধারিত হয়ে পরে সেক্ষেত্রে এটি তা বিচ্ছেদ প্রতিরোধে চমৎকার কাজ করে। যাদের সাইনোসাইটিস, মাইগ্রেন, চোখের পীড়া বা এলার্জী জনিত পীড়ায় ভোগান্তি বৃদ্ধি পায় তাদের ক্ষেত্রে রত্ন এক প্রকার অব্যর্থ ঔষধ এর মতো সাহায্য করে থাকে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com