গুরুত্ব দেয়নি সারী বনবিট: আটক অজগরটি খাদিমনগরে অবমুক্ত

প্রকাশিত: ৮:১১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯

গুরুত্ব দেয়নি সারী বনবিট: আটক অজগরটি খাদিমনগরে অবমুক্ত

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের দলইপাড়া গ্রামে স্থানীয় জনতার হাতে আটক অজগর সাপটি অবেশেষে খাদিমনগর উদ্যানে অবমুক্ত করা হয়েছে। শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সাপটিকে খাদিমনগর উদ্যানের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এরআগে শনিবার  দুপুর ১২টায় উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের বাঘেরখাল দলইপাড়া গ্রামের বাসিন্ধা হাজী আরফান আলীর ছেলে রফিক আহমদ (৫০) তার বাড়ীর আঙ্গীনার ঝোপ-ঝাড় পরিষ্কার করতে গিয়ে অজগর সাপটি দেখতে পান।সাপ দেখে রফিক আহমদ চিৎকার দিলে প্রতিবেশি বিলাল আহমদ, আব্দুল কুদ্দুছ, জালাল আহমদ, মাহমুদ হুসেনসহ এলাকার লোকজন এগিয়ে এসে সাপটি আাটক করেন।

আরো পড়ুন  জৈন্তাপুরে জনতার হাতে বিশাল অজগর

বিষয়টি স্থানীয়রা সারী বনবিটে খবর দিলে কোনো গুরুত্ব দেননি কর্মকর্তা। বনবিভাগ বিষয়টি গুরুত্ব না দেওয়ায় এলাকাবাসী স্থানীয় সংবাদকর্মীদের সহযোগিতা চান।

সংবাদকর্মীরা বিষয়টি সারী বনবিটের কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামানকে জানালে তিনি বলেন, সাপটি মেরে ফেলুন কিংবা কোন জঙ্গলে ছেড়ে দিন, সাপটি চলে যাবে অযতা ঝামেলা করার প্রয়োজন নেই। অর্থাৎ আটককৃত অজগর সাপটি উদ্ধারে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করতে তিনি রাজি নন, বরং সাপটি হত্যার করার পরামর্শ দেন।

এদিকে, স্থানীয় সংবাদকর্মীরা কোনো উপায় না পেয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানা ও খাদিমনগর উদ্যানে খবর দেয়। সংবাদ পেয়ে জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক তাৎক্ষনিকভাবে অজগর সাপটি উদ্ধার করতে এএসআই হরিধনকে ঘটনা স্থলে পাঠান।

বিকাল ৫টায় হরিধন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে দলইপাড়া এলে এলাকাবাসী অজগর সাপটি পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

ওদিকে, অজগর সাপ আটকের খবর পেয়ে খাদিমনগর উদ্যান কর্তৃপক্ষ দ্রুত ঘটনাস্থলে তাদের হিসাব সহকারী আব্দুল কাদির পাঠায়।

থানার ওসি শ্যামল বণিকের নির্দেশে প্রায় ১০ফুট লম্বা অজগর সাপটি এএসআই হরিধন ও স্থানীয় সাংবাদিক শোয়েব উদ্দিনের উপস্থিতিতে খাদিমনগর উদ্যানের হিসাব রক্ষক আব্দুল কাদিরের কাছে হস্তান্তর করেন।

তিনি সাপটি খাদিমনগর উদ্যানে অবমুক্ত করা হবে বলে জানান। তবে সারী বিট ও রেঞ্জের কাউকে সাপ উদ্ধারে জন্য ঘটনাস্থলে দেখতে পাওয়া যায়নি। দলইপাড়া এলাকায় গত রমজান মাসে ১ টিসহ এ পর্যন্ত ৪ টি আজগর সাপ আটক করা হয়েছে।

এবিষয়ে সারী রেঞ্জেরে কর্মকর্তা সাদ উদ্দিন জানান, বিট কর্মকর্তা কোনো অবস্থায় সাপ উদ্ধার করা হতে বিরত থাকতে পারেন না। কি কারনে সাপ উদ্ধার না করে মেরে ফেলার বা লোকালয়ে ছেড়ে দেওয়ার পারমর্শ দিলেন তা বোধগম্য হচ্ছে না। আমি বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com