চার দেশে সড়ক যোগাযোগ শুরু জানুয়ারিতে

প্রকাশিত: ২:৩১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৫, ২০১৫

চার দেশে সড়ক যোগাযোগ শুরু জানুয়ারিতে
kadera
সুরমা মেইলঃ আগামী বছরে ১ জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপালের (বিবিআইএন) মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে পণ্যবাহী গাড়ি, যাত্রীবাহী বাস ও ব্যক্তিগত মোটরযান চলাচল শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
আজ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী তিনি এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, ‘চুক্তিতে জানুয়ারির কথাই বলা হয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে জানুয়ারিতেই যান চলাচল শুরু হবে। তারপরও আরেকবার বসে আমরা তারিখটা ঠিক করব। আমাদের রাস্তাগুলো প্রস্তুত। কিছু কিছু কাজ বাকি আছে, সেগুলো আমরা (মেরামত) করছি।’
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘চুক্তি অনুযায়ী ফি যার যার দেশের নিয়ম অনুযায়ী হবে। আমাদের দেশের নিয়ম অনুযায়ী আমরা করব। চালু হওয়ার আগে আমরা এটা বসে নির্ধারণ করব।’
মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপালের মধ্যে মহাসড়ক যোগাযোগ সম্প্রসারণ ও সংহত করতে গত ১৫ জুন ভুটানের রাজধানী থিম্পুতে বিবিআইএন দেশসমূহের পরিবহন মন্ত্রীরা এক সভায় মোটর ভেহিক্যালস এগ্রিমেন্ট (এমভিএ) ফর দ্য রেগুলেশন অব প্যাসেঞ্জার, পারসোনাল এ্যান্ড কার্গো ভেহিকুলার ট্রাফিক বিটুইন বাংলাদেশ, ভুটান, ইন্ডিয়া এ্যান্ড নেপাল’ স্বাক্ষরিত হয়েছে। গত ২৪ আগস্ট আমাদের মন্ত্রিসভা চুক্তিটি অনুসমর্থন করে।’
চুক্তি বাস্তবায়নের গত ৮ ও ৯ সেপ্টেম্বরে ঢাকায় প্রটোকল নিয়ে সভা হয়। সেখানে পরীক্ষামূলকভাবে যাত্রীবাহী, পণ্যবাহী যান চলাচল ও ফেন্ডশিপ মটর র‌্যালির সময়, সম্ভাব্য রুট নিয়ে সবাই একমত হন বলে জানান সড়ক পরিবহনমন্ত্রী।
অক্টোবর-নভেম্বর মাসে পরীক্ষামূলকভাবে যাত্রীবাহী যান চলাচল করবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ, ভারত ও ভুটানের মধ্যে আগামী ২৯ অক্টোবর অথবা সুবিধাজনক সময়ে চট্টগ্রাম-ঢাকা-হাটিকুমরুল-রংপুর-বুড়িমারি/চেংড়াবান্ধা (ভারত)-শিলিগুড়ি (ভারত)-জয়গাঁও (ভারত)/ফুয়েন্টশোলিং (ভুটান)-থিম্পু (ভুটান) রুটে অথবা ভুটানের থিম্পু হতে থিম্পু (ভুটান)-ফুয়েন্টশোলিং (ভুটান)/জয়গাঁও (ভারত)-শিলিগুড়ি (ভারত)-চেংড়াবান্ধা (ভারত)/বুড়িমারি-রংপুর-হাটিকুমরুল কা-চট্টগ্রাম রুটে যাত্রীবাহী যানবাহন পরীক্ষামূলকভাবে চলাচল করবে।’
আগামী নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে পণ্যবাহী যান পরীক্ষামূলকভাবে চলাচল করতে পারে জানিয়ে আওয়ামী লীগের এই জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, ‘সম্ভাব্য রুটে একজন অপারেটরের নাম এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) কাছে পাঠাতে হবে। এ জন্য মংলা বন্দর-খুলনা-হাটিকুমরুল-বগুড়া-রংপুর-বুড়িমারি/চেংড়াবান্ধা (ভারত)-জয়গাঁও (ভারত)/ফুয়েন্টশোলিং (ভুটান)-থিম্পু (ভূটান) রুটে পরীক্ষামূলকভাবে পণ্যবাহী যান চালাতে মেসার্স নজরুল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সিকে অপারেটর হিসেবে মনোনীত করে এডিবির কাছে পাঠানো হয়েছে।’
মোটর র‌্যালি আগামী ১৪ নভেম্বর ভারতের উড়িষ্যা প্রদেশের ভুবনেশ্বর থেকে শুরু হয়ে বিহারের রাঁচি, পাটনা, নেপালের কাঠমান্ডু, বিরাটনগর, ভুটানের ফুয়েন্টসোলিং, থিম্পু, ভুমথাং, মঙ্গার, ভারতের আসামের গৌহাটি, শিলচর, ত্রিপুরার আগরতলা হয়ে ২৮ নভেম্বর আখাউড়া অথবা ফেনীর বিলোনিয়া সীমান্ত হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে।’
ওবায়দুল কাদের বলেন, র‌্যালিটি চট্টগ্রাম হয়ে ঢাকায় আসবে। ২৯ নভেম্বর ঢাকায় একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। ৩০ নভেম্বর সকালে ঢাকা থেকে যাত্রা শুরু করে বেনাপোল সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতের কলকাতায় গিয়ে শেষ হবে।’
মটর র‌্যালিতে যোগ দিতে চার সদস্যের বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল গঠন করা হয়েছে জানিয়ে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, ‘ভারত সরকারের মনোনীত আয়োজক প্রতিষ্ঠান কলিঙ্গ মোটর স্পোর্টস ক্লাবের উদ্যোগে মটর র‌্যালিতে যোগদানের প্রতিনিধি দলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের দু’জন সরকারি কর্মকর্তা এবং বিআরটিসি (বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন) ও এফবিসিসিআই’র (দ্য ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রি) দু’জন বেসরকারি প্রতিনিধি রয়েছেন।’
বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের সংখ্যা আটজনে উন্নীত করতে ইতোমধ্যে ভারতের আয়োজক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। র‌্যালিতে কলিঙ্গ মোটর স্পোর্টস ক্লাবের ২০-২১টি গাড়ি অংশগ্রহণ করবে বলেও জানান তিনি।
সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

Flag Counter

আমাদের ভিজিটর সংখ্যা

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com