নবীগঞ্জে আ’লীগের পথসভায় ককটেল বিস্ফোরণ

প্রকাশিত: ৩:০১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২১

নবীগঞ্জে আ’লীগের পথসভায় ককটেল বিস্ফোরণ

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে আওয়ামী লীগের পথসভায় ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক নৌকার মাঝি গোলাম রসূল চৌধুরী রাহেল। এতে আহত হয়েছেন ৩ জন।

 

রোববার (১০ জানুয়ারী) বিকেলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন উপলক্ষ্যে শোভাযাত্রার আয়োজন করে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা।

 

এ সময় নবীগঞ্জ শহরের নতুন বাজার মোড়ে সংক্ষিপ্ত এক পথসভায় মিলিত হন দলের নেতারা।

 

এ শোভাযাত্রায় অংশ নেন আগামী ১৬ জানুয়ারী অনুষ্ঠিত পৌর নির্বাচনের নৌকার মাঝি গোলম রসূল চৌধুরী রাহেলসহ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতাকর্মী।

 

স্থানীয়রা জানান, শোভাযাত্রা শেষে নবীগঞ্জ শহরের নতুন বাজার মোড়ে যখন পথসভায় সমাপনী বক্তব্য রাখেন পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মোজাহিদ আলম চৌধুরী ঠিক এই সময় হঠাৎ পর পর দু’টি বিকট শব্দ হয়।

 

প্রথমে সবাই রিক্সার চাকা ব্লাস্ট মনে করলেও পরে দেখা যায় বোতলে মোড়ানো ককটেল বিস্ফোরণ ঘটেছে। এতে ছাত্রলীগের ৩ নেতা আহত হয়েছেন। তাদের উদ্ধার করে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়েছে।

 

আহতরা হলেন- নবীগঞ্জ পৌর এলাকার সালামতপুর গ্রামের ছমির মিয়ার পুত্র নজির মিয়া (৩৬), উপজেলার গোপলার বাজার ভানুবর গ্রামের ফিরোজ মিয়ার পুত্র শিপন আহমেদ (২২), দেবপাড়া ইউনিয়নের প্রজাতপুর গ্রামের হোসেন মিয়ার পুত্র তারেকুল ইসলাম রনি। এ ঘটনায় নবীগঞ্জ শহরজুড়ে আতংক বিরাজ করছে।

 

শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে মোতায়েন করা হয়েছে অসংখ্য পুলিশ। ঘটনার সাথে জডিতদের গ্রেফতারে চলছে অভিযান।

 

নবীগঞ্জ পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মোজাহিদ আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নির্মেলেন্দু রানার পরিচালনায় অনুষ্টিত পথসভায় বক্তব্য রাখেন, যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদিকা সংরক্ষিত আসনের সাবেক এমপি অধ্যাপক অপু উকিল, কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য রফিকুল ইসলাম, হাবিবুর রহমান পবন, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জহির উদ্দিন খসরু, ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষক ডাঃ রেজাউল করিম, কেন্দ্রীয় যুবলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মুকিত চৌধুরী, জেলা পরিষদ সদস্য এড, সুলতান মাহমুদ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান আবু সিদ্দিক, আওয়ামীলীগের প্রার্থী গোলাম রসূল চৌধুরী রাহেল, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহ ফয়সল তালুকদার, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি বাবলু আহমেদসহ আওয়ামীলীগের অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী। এছাড়াও নবীগঞ্জ পৌরসভার অসংখ্য ভোটার ও সাধারণ মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

 

এদিকে এ ঘটনা পরিকল্পিত বলে দাবি করছেন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। তারা বলছেন, বিএনপির সাবেক এমপি প্রবাসী নেতা শেখ সুজাত মিয়া ও বিএনপির প্রার্থী ছাবির আহমেদ চৌধুরীর ইন্ধনে দুর্বৃত্তরা ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে।

 

এ ঘটনার প্রতিবাদে বিএনপির সাবেক এমপি শেখ সুজাত মিয়া ও ধানের শীষের প্রার্থী ছাবির আহমেদ চৌধুরীকে দায়ী করে তাৎক্ষনিক জুতা মিছিল বের করে উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রলীগের নেতারা।

 

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আজিজুর রহমান বলেন, এ হামলায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

 

রোববার রাত ৯ টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কয়টি ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে সঠিক বলতে পারেননি থানার ওসি। তিনি বলেন, ‘তদন্ত কাজ চলছে পরবর্তীতে জানানো হবে।’

 

অপরদিকে রোববার রাত ৯ টায় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু দাশ রানা বলেন, ‘বিএনপির প্রার্থী ছাবির আহমেদ চৌধুরী পরাজয়ের ভয়ে দিশেহারা হয়ে এই চোরাগুপ্তা হামলা চালায়। এ বিষয়ে কোনো মামলা দায়ের করা হয়েছে কি না বা মামলার প্রস্তুতি চলছে কি না?’

 

 সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে রানা জানান, পরবর্তীতে সাংগঠনিক বৈঠক শেষে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com