প্যারিসের তারায় তারায় রটিয়ে দিলেন জেমস!

প্রকাশিত: ৬:৩৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৭, ২০১৫

প্যারিসের তারায় তারায় রটিয়ে দিলেন জেমস!

james

সুরমা মেইলঃ প্যারিস শিল্পের শহর, সংস্কৃতির শহর, সংগীতের শহর, চির তারুণ্যের শহর। আবার কারও কারও কাছে প্রেমের শহর! প্যারিস নামটার সঙ্গে মিশে আছে নাচ, গান, সুর, লয়, তাল, উন্মাদনা। সেই প্যারিসে প্রবাসীদের মধ্যে সুরের মূর্ছনা ছড়াতে এসেছিলেন নগরবাউল জেমস। এলেন, উন্মাদনায় মাতালেন, তারায় তারায় রটিয়ে দিয়ে জয় করলেন প্রবাসীদের মন।

প্যারিসের বন নবেল অডিটোরিয়ামে গত ৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় জেমসের  সুরের মায়ায় আবিষ্ট হয়ে ছিলেন দর্শক-শ্রোতারা। স্থানীয় একটি বাংলাদেশি সংগঠনের  উদ্যোগে অনুষ্ঠিত  লাইভ কনসার্টটি তার গায়কী আর গিটারের জাদুস্পর্শে হয়ে উঠেছিলো প্রবাসীদের মিলনমেলা। ব্যস্ততম শহরে একটু দেশীয় সুর,  একটু  দেশীয় উন্মাদনার আবহ পেলেন তারা।

নগরবাউল তার সুললিত কণ্ঠে প্রথমেই শুরু করলেন ‘ও বিজলী চলে যেও না’। মুহূর্তে মিলনায়তনভর্তি দর্শকরাও যেন বিরহ ব্যথায় কাতর হয়ে সুরে সুর মিলাতে লাগলো। এ এক অসাধারণ দৃশ্য!

প্রবাসী দর্শকের মনের অবস্থা বুঝে নগরবাউল একে একে গেঁয়ে গেলেন- ‘কোথায় আছে কেমন আছে মা’, ‘দুঃখিনী দুঃখ করো না’, ‘আমি তারায় তারায় রটিয়ে দেবো’, ‘ফুল নেবে না অশ্রু নেবে’, ‘লেইস ফিতা লেইস’, ‘গুরু ঘর বানাইলা কি দিয়া’, ‘দুষ্ট ছেলের দল’, ‘পদ্ম পাতার জল’, ‘ বেদের মেয়ে জোছনা’র মতো  জনপ্রিয় কিছু  গান। দর্শকদের মাঝরাত পর্যন্ত উন্মাদনায় রেখেস জেমস তার পরিবেশনা  শেষ করেন আরেক জনপ্রিয় গান ‘ভিগি ভিগি’ দিয়ে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে দর্শকদের মাতিয়ে রাখেন প্রবাসী শিল্পী আরিফ রানা। উপস্থাপনায় ছিলেন প্যারিসের জনপ্রিয় উপস্থাপক এম মুহিত। প্রবাসীদের বিনোদন দিতে এই অনুষ্ঠানের আয়োজদেরকেও (রানা শিকদার, সুব্রত ভট্টাচার্য শুভ, সানু ভূঁইয়া, এমদাদুল হক স্বপন, জুয়েল)  ধন্যবাদ দিতে ভোলেননি দর্শক-শ্রোতারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com