বাসের সঙ্গে বরযাত্রী গাড়ির সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ১০ জনের

প্রকাশিত: ১১:৩২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০১৯

বাসের সঙ্গে বরযাত্রী গাড়ির সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ১০ জনের

সুরমা মেইল ডেস্ক : মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে বাস ও বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত বেড়ে ১০ জনে দাঁড়িয়েছে। এতে আহত হয়েছেন আরো ১০ জন। বিয়েবাড়ি পরিণত হয়েছে শোকের বাড়িতে।

 

শুক্রবার (২২ নভেম্বর) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার ঘোলঘর এলাকায় ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

 

নিহত ব্যক্তিরা হলেন- আবদুর রশিদ (৭০), নিপা আক্তার (২৪), তাবাসসুম আক্তার (৬), রেনু আক্তার (১০), মো. তাহসান (৫), কেরামত আলী (৭২), মফিদুল মোল্লা (৬০), মো. বিল্লাল (৪০), রুনা আকতার (২৪) ও জাহাঙ্গীর আলম (৪৫)।

 

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, ঢাকা থেকে মাওয়ামুখী স্বাধীন পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে ঢাকামুখী বরযাত্রী বহরের মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে এক শিশু ও দুই নারীসহ আটজন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। পরে আহতদের মধ্যে দুইজন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। নিহতদের বেশিরভাগই মাক্রোবাসের যাত্রী।

 

 

শ্রীনগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হেদায়েতুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কনকশার থেকে বরযাত্রী বহরের সঙ্গে কেরানীগঞ্জের কামরাঙ্গীচর যাচ্ছিল মাইক্রোবাসটি। পথে মাওয়াগামী স্বাধীন পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মাইক্রোবাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষে হলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

 

বিয়েবাড়ি হল শোকের বাড়ি

দুর্ঘটনার পর কনকশার গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে, যার বিয়ে সেই রুবেল হোসেন নির্বাক হয়ে গেছেন। নির্বাক হয়ে গেছেন তার ভাই সোহেলও। এই দুর্ঘটনা সোহেলের স্ত্রী রুনা ও ছেলে তাহসিনকে কেড়ে নিয়েছে।

 

দুই ভাই কারও সঙ্গে কথা বলছেন না। শুধু ফ্যালফ্যাল করে চেয়ে আছেন। বিয়েবাড়ি তাই শোকের বাড়িতে পরিণত হয়েছে। নেই কোনো ধুমধাম। চলছে শুধু স্বজনদের আহাজারি। এলাকাবাসী ভিড় করছে। কারও মুখে কথা নেই। স্বজনদের আহাজারিতে গ্রামের বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে। স্বজনরা একে অপরকে জড়িয়ে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন। কে কাকে সান্ত্বনা দেবে সে ভাষাও যেন নেই তাদের।

 

রুবেল স্থানীয় বাজারে একটি মুদি দোকান চালান বলে তার স্বজনরা জানান। বরযাত্রীরা যাচ্ছিলেন দুটি মাইক্রোবাসে। পেছনে ছিলেন বর রুবেল, প্রতিবেশী নজরুল ইসলামসহ অন্যরা।

 

নজরুল সাংবাদিকদের বলেন, আমরা দুটি মাইক্রো নিয়ে বিয়ের কাবিন করতে যাচ্ছিলাম। পেছনের মাইক্রোয় ছিলাম বলে রুবেলসহ আমরা কয়জন প্রাণে বেঁচে গেছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com