বাড়ি থেকে ৩৮ লাখ টাকা চুরি করে শপিংয়ে কিশোরী

প্রকাশিত: ১:১৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৪, ২০১৫

বাড়ি থেকে ৩৮ লাখ টাকা চুরি করে শপিংয়ে কিশোরী

38

সুরমা মেইলঃ অত্যন্ত উচ্চাকাঙ্খা মানুষকে যে আখেরে নীচেই নামায় তা ফের একবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখাল নয়াদিল্লির এই কিশোরী। বাড়ির সিন্দুক থেকে ৩৮ লক্ষ টাকা চুরি করে তিন বান্ধবীর সঙ্গে দেরাদূন-এ গিয়ে শপিংয়ে মাতল সে।

ঘটনাটি ঘটে গত বুধবার রাতে। অষ্টম শ্রেণির এই ছাত্রী তার এক বান্ধবীর সঙ্গে বাড়িতে রাখা সিন্দুক থেকে টাকা চুরির পরিকল্পনা করে। বাবা-মা নিমন্ত্রণ খেতে যাওয়ায় সে দিন বাড়িতে কেউ ছিল না। সেই সুযোগে সিন্দুক খুলে টাকা বার করে নেয় তারা। পর দিন স্কুল থেকেই ট্যাক্সি ধরে নিজামুদ্দিন স্টেশনের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। সঙ্গে নিধি-র স্কুলেরই তিন বান্ধবী ছিল। তবে স্টেশনে পৌঁছে তারা দেখে কয়েক ঘণ্টায় দেরাদূন যাওয়ার কোনও ট্রেন নেই। তারা সেই ড্রাইভারকে রাজি করিয়ে ট্যাক্সি চেপেই দেরাদূন পৌঁছায় শুক্রবার। ১১ হাজার টাকা ভাড়াও গুনতে হয় তার জন্যে।

সেখানে একটি বিলাসবহুল হোটেলের সুইট বুক করে চার বান্ধবী। যার ভাড়া দিন প্রতি ১০ হাজার। হোটেলে চেক-ইন করার পর চার জন বেরিয়ে পড়ে শপিং করতে। প্রায় ৮০ হাজার টাকার শপিং করে তারা। এ দিকে, পুলিশের কাছে মিসিং ডাইরি করে সকলের অভিভাবকরা। পুলিশের ধারণা হয়, মেয়েদের অপহরণ করা হয়েছে। তারাও সেই মতো তদন্ত শুরু করে। ডিসিপি মনদীপ রনধাওয়া একটি বিশেষ তদন্তকারি দল গঠন করেন এসিপি অনিল যাদবের নেতৃত্বে। মোবাইল টাওয়ার লোকেশনে দেখা যায়, চারজনেরই মোবাইল দিল্লিতেই সুইচ অফ করা রয়েছে। মেয়েদের খোঁজে রাস্তার সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখা শুরু করে পুলিশ। সেখান থেকেই ওই ট্যাক্সি চালকের খোঁজ মেলে। তাঁর কাছ থেকেই ওই মেয়েদের ব্যাপারে জানতে পারে পুলিশ।

সেই মতো পুলিশের একটি দল রওনা দেয় দেরাদূনে। ফোনে সেই হোটেল কর্তৃপক্ষের সহ্গে কাথ বলে নির্দেশ দেয়, মেয়েরা ফিরলে যেন তাদের ঘরের দরজা বাইরে থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়, যত ক্ষণ না পুলিশ সেখানে পৌঁছচ্ছে। শনিবার রাতে শপিং সেরে ফেরার পর দরজা বাইরে থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়। পর দিন সকালেই পুলিশ সেখান থেকে ওই চার জনকে ফিরিয়ে নিয়ে যায় দিল্লি। তখনও নিধি-র কাছে প্রায় ৩৭ লক্ষ টাকা নগদ রয়েছে। ডিসিপি রনধাওয়া জানিয়েছেন, পুলিশ আইন মোতাবেক চলবে। সেই অনুযায়ী এদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com