বিনিয়োগের সবচেয়ে ভালো পরিবেশ বাংলাদেশে : দিল্লিতে শেখ হাসিনা

প্রকাশিত: ৩:৩৯ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৪, ২০১৯

বিনিয়োগের সবচেয়ে ভালো পরিবেশ বাংলাদেশে : দিল্লিতে শেখ হাসিনা

সুরমা মেইল ডেস্ক : নয়া দিল্লি সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বাংলাদেশের শিক্ষা, হালকা প্রকৌশল, ইলেকট্রনিক্স, অটোমোটিভ ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মতো শিল্প খাতে বিনিয়োগের জন্য এখনই সবচেয়ে ভালো সময়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিনিয়োগকারী, বিশেষ করে ভারতীয় বিনিয়োগকারীরা এখন বাংলাদেশে এসব খাতে বিনিয়োগ করতে পারেন।’

 

বৃহস্পতিবার (০৩ অক্টোবর) নয়া দিল্লির হোটেল তাজ প্যালেসে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের (ডাব্লিউইএফ) ইন্ডিয়া ইকোনমিক সামিটে বাংলাদেশের ওপর কৌশলগত আলোচনার সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

 

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি স্বাধীন ও উদার বিনিয়োগের পরিবেশ বিরাজ করছে। বিনিয়াগবান্ধব বাংলাদেশে বৈদেশিক বিনিয়োগকারীরদের জন্য আইনি সুরক্ষা, উদার রাজস্ব ব্যবস্থা, মেশিনপত্র আমদানির ক্ষেত্রে বিশেষ ছাড়, আনরেস্ট্রিকটেড এক্সিট পলিসি, সম্পূর্ণ বিনিয়োগ ও পুঁজি নিয়ে চলে যাওয়ার সুবিধাসহ আরও নানাবিধ সুবিধা রয়েছে।’

 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে নিরবচ্ছিন্ন সুবিধা ও সেবা নিশ্চিত করে একশটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করেছি। এর মধ্যে ১২টি অঞ্চল এরই মধ্যে কাজ শুরু করে দিয়েছে। দু’টি অঞ্চলকে ভারতের বিনিয়োগকারীদের জন্য সংরক্ষিত রাখা হয়েছে। প্রযুক্তি ও উদ্ভাবনী প্রতিষ্ঠানের জন্য বেশ কয়েকটি হাইটেক পার্কও প্রস্তুত করা হয়েছে।’

 

প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের এই ব্যাপক উন্নয়নের জন্য সামাজিক মূল্যবোধ ও বাংলাদেশের মানুষের আস্থার প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, অনেকেই বাংলাদেশকে ‘তিন কোটি মধ্য ও উচ্চবিত্ত মানুষের একটি বাজার’ ও ‘অলৌকিক উন্নয়নের’ হিসেবে দেখে থাকেন। তবে আমি মনে করি, আমাদের প্রধান শক্তি হচ্ছে সামাজিক মূল্যবোধ ও বাংলাদেশের প্রতি মানুষের আস্থা। সাম্য, সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে চলার আকাঙ্ক্ষার পাশাপাশি আমাদের নেতৃত্বের প্রতি তাদের অবিচল আস্থা রয়েছে।

 

৪০টি দেশের আটশ প্রতিনিধি নয়া দিল্লিতে দুই দিনের এই সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন। আজ (শুক্রবার) সম্মেলনটি শেষ হবে। সম্মেলনের সমাপনী অধিবেশনেও বক্তৃতা দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

এই শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে আজ সকালেই ভারতের নয়া দিল্লি পৌঁছেছেন। দিল্লির পালাম বিমানবাহিনী স্টেশনে তাকে স্বাগত জানান ভারতের নারী ও শিশুকল্যাণ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী।

 

দুই দিনের এই সম্মেলন শেষে ভারতে আরও দুই দিন অবস্থান করবেন শেখ হাসিনা। সফরে দুই দেশের সম্পর্ককে আরও এগিয়ে নিতে কমবেশি এক ডজন চুক্তি বা সমঝোতা স্মারক সই হওয়ার সম্ভাবনার রয়েছে।

 

সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে আগামী শনিবার (৫ অক্টোবর) সকালে দ্বিপাক্ষিক এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে যুব উন্নয়ন, বন্দর ব্যবহার, যোগাযোগ, উন্নয়ন সহযোগিতা, প্রতিরক্ষা, পানি, সমুদ্র অর্থনীতি, নিরাপত্তা ও জ্বালানি গুরুত্ব পাবে বলে জানা যাচ্ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com