বিশ্বনাথে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি: দূর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

প্রকাশিত: ৯:৩১ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০২২

বিশ্বনাথে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি: দূর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :
টানা বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলের পানিতে বন্যায় কবলিত সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। উপজেলার লামাকাজী, খাজাঞ্চী ও অলংকারী ইউনিয়নের পাশাপাশি নতুন করে বন্যায় প্লাবিত হয়েছে রামপাশা ও দৌলতপুর ইউনিয়ন। বন্যার কারণে গত কয়েকদিন ধরে পানিবন্দি হয়ে আছেন উপজেলার প্রায় ১৮ হাজার পরিবার।

 

ধীরে ধীরে পানি বৃদ্ধির কারণে নতুন করে আরোও অনেক এলাকা বন্যায় প্লাবিত হওয়ার আশংঙ্কা রয়েছে। ফলে সময়ের সাথে সাথে উপজেলার ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

 

বন্যা কবলিত এলাকার অনেকেই স্থান নিয়েছেন আশ্রয়কেন্দ্রে, আবার অনেকেই আশ্রয় নিয়েছেন নিজেদের আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে। সেইসব বন্যা দূর্গতদের মধ্যে লামাকাজী ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে সরকারি ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) বিকেল সাড়ে ৩টায় উপজেলার লামাকাজি বাজার সংলগ্ন ফারুক মিয়ার বাড়িতে ইউনিয়নের ৪ শতাধিক বন্যার্ত পরিবারের মাঝে চাল, শুকনো খাবার, খাবার স্যালাইন ও পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়। এরমধ্যে দুইশত পরিবারের মাঝে শুকনো খাবারের প্যাকেট ও দুইশত পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়।

 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও পৌর প্রশাসক নুসরাত জাহানের সভাপতিত্বে এবং লামাকাজী ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান-১ এনামুল হক এনাম মেম্বারের পরিচালনায় ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান।

 

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও স্থানীয় সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য এস এম নুনু মিয়া।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান বলেন, সিলেট জেলার সবকটি উপজেলায়ই বন্যায় কবলিত। বিশ্বনাথ উপজেলার বন্যায় দূর্গতদের জন্য ইতিমধ্যে ১২ মেট্রিক টন চাল বরাদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়াও আশ্রয় কেন্দ্রে শুকনো খাবার পৌছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

 

বন্যায় দূর্গতদের নিয়মিত প্রশাসনের পক্ষ থেকে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে, তাই সরকারি ত্রাণ থেকে কেউ যেমন বঞ্চিত হবেন না, তেমনি খাবারের জন্য কাউকে কষ্টভোগ পোহাতেও হবে না। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মতোই বর্ন্যাদূগত সবার কাজে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া হবে সময়মতো।

 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও স্থানীয় সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেন, সিলেটের মানুষকে আলাদা নজরে দেখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সিলেটে বন্যা শুনেই এ জেলার বন্যায় দূর্গতদের জন্য খাবারসহ পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণ পাঠিয়েছেন তিনি। ইতিমধ্যে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শন করে গিয়েছেন।

 

তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতদিন বেঁচে থাকবেন সিলেটের মানুষের কোন কিছুরই অভাব হবে না।

 

অনুষ্ঠানে নিজের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে খাবার স্যালাইন ও পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট বিতরণ করার পাশাপাশি বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও স্থানীয় সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী। দূর্গতদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের খোঁজ-খবর নেন ও এলাকার আরো ত্রাণ পৌঁছানোর আশ্বাস প্রদান করেন।

 

ত্রাণ বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ইমরুল হাসান, বিশ্বনাথের সহকারী কমিশনার (ভ‚মি) আসমা জাহান সরকার, থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) গাজী আতাউর রহমান, পরিদর্শক (তদন্ত) জাহিদুল ইসলাম, লামাকাজী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কবির হোসেন ধলা মিয়া, রামপাশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলমগীর, উপজেলা আওয়ামী লীগেরর আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মতিন, সদস্য শাহনুর হোসাইন, জেলা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক কবিরুল ইসলাম কবির, লামাকাজী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি পুলক ভট্টাচার্য, পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক মহব্বত আলী, সদস্য দবির মিয়া, আওয়ামী লীগ নেতা অতুল দেব, আব্দুর রব, নূরুল ইসলাম বুলবুল, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ফয়ছল আহমদ, সহ সভাপতি শিল্টু দাশ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রচার সম্পাদক সিজিল মিয়া, লামাকাজী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক জহির উদ্দিন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সম্পাদক আকমল হোসাইন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক ফয়জুল ইসলাম জয়, ছাত্রলীগ নেতা মিয়াদ আহমদ প্রমূখ।


সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com