ব্রিটেনে টিউলিপ-রুশনারাদের সাথী হলেন আরেক সিলেটী আফসানা

প্রকাশিত: ১১:২৬ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯

ব্রিটেনে টিউলিপ-রুশনারাদের সাথী হলেন আরেক সিলেটী আফসানা

মেইল ডেস্ক : ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে বড় জয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি। এবারের নির্বাচনে লেবার পার্টি থেকে টিউলিপ সিদ্দিক, রুশনারা আলী ও রূপা হকের পাশাপাশি প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন আফসানা বেগম। তার বিজয়ের মধ্য দিয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এমপির সংখ্যা বেড়ে হলো চারজন।

 

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেন বের হবে কিনা অর্থাৎ ব্রেক্সিট কার্যকর হবে কিনা সেই ইস্যুতে বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) দেশটিতে পার্লামেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ভোটারদের কাছে পার্টির চেয়ে বড়ো ইস্যু হয়ে উঠেছিলো ব্রেক্সিট ইস্যু। এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ৯ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী। যাদের মধ্যে ৭ জনই নারী। বিরোধী লেবার পার্টি থেকে লড়েছেন সর্বোচ্চ ৭ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত প্রার্থী। লিবারেল ডেমোক্র্যাট ও কনজারভেটিভ পার্টি থেকে এক জন করে এই নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

 

রুশনারা আলী : নির্বাচনে টানা চতুর্থবারের মতো বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড হে আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছেন রুশনারা আলী। ৪৪ হাজার ৫২ ভোট পেয়ে জয়ী হন তিনি। কনজারভেটিভ পার্টির নিকোলাস স্টোভোল্ডকে ৩৭ হাজার ৫২৪ ভোটে পরাজিত করেছেন তিনি। ২০১০ সাল থেকে বেথনাল গ্রিন অ্যান্ড বো আসনে টানা তিনবার লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন রুশনারা আলী।

 

৪৪ বছরের এ রাজনীতিকের জন্ম সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার ভুরকি গ্রামে। ছোটবেলায় মা-বাবার সঙ্গে লন্ডনে যান। ২০১০ সালের পর ২০১৫ সালের নির্বাচনে বিপুল ব্যবধানে নির্বাচিত হন রুশনারা আলী। ২০১৭ সালের নির্বাচনেও ভোট ব্যবধান বাড়ে।

 

টিউলিপ সিদ্দিক : এই নির্বাচনে লন্ডনের প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ আসন হ্যাম্পস্টেড অ্যান্ড কিলবার্নে থেকে ২৮ হাজার ৮০ ভোট পেয়ে তৃতীয়বারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপ রেজওয়ানা সিদ্দিক। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ দলের জনি লাক ভোট পেয়েছেন ১৩ হাজার ৮৯২।

 

২০১৫ সালে ১ হাজার ১৩৮ ভোটের ব্যবধানে প্রথমবার এমপি নির্বাচিত হন টিউলিপ। ২০১৭ সালে ভোটে টিউলিপের জয়ের ব্যবধান বেড়ে দাঁড়ায় ১৫ হাজার ৫৬০। এবার ১৪ হাজার ১৮৮ ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হলেন তিনি।

 

রূপা হক : লন্ডনের ইলিং সেন্ট্রাল অ্যান্ড অ্যাকটন আসনে তৃতীয় মেয়াদে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রূপা হক। লেবার দলীয় প্রার্থী রূপা হকের প্রাপ্ত ভোট ২৮ হাজার ১৩২। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ দলের প্রার্থী জুলিয়ান গেল্যান্ট পেয়েছেন ১৪ হাজার ৮৩২ ভোট।

 

২০১৫ সালে রূপা হক প্রথমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হন। ওইবার তিনি মাত্র ২৭৪ ভোটের ব্যবধানে জয় পেয়ে চমক সৃষ্টি করেন। ২০১৭ সালে তিনি জিতেছিলেন ১৩ হাজার ৮০৭ ভোটের ব্যবধানে। এবার ১৩ হাজার ৩০০ ভোটের ব্যবধানে জয় পেয়েছেন বাংলাদেশি পরিবারের সন্তান রূপা।

 

আফসানা বেগম : এদিকে প্রথমবারের মতো ব্রিটিশ পার্লামেন্টের সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন আফসানা বেগম। পপলার অ্যান্ড লাইস হাউস আসন থেকে ৩৮ হাজার ৬৬০ ভোট পেয়ে সর্বকনিষ্ঠ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ পার্লামেন্টেরিয়ান নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ দলের প্রার্থী শন ওক পেয়েছেন ৯ হাজার ৭৫৬ ভোট।

 

এবারই প্রথম লেবার পার্টির প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন তিনি। তার বিজয়ের মধ্য দিয়ে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এমপির সংখ্যা বেড়ে হলো চারজন। আফসানা সিলেট বিভাগের সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর  পৌরসভার লুদুরপুর এলাকার মনির উদ্দিনের মেয়ে জন্ম ‍ব্রিটেনে। তাঁর বাবা মনির উদ্দিন টাওয়ার হ্যামলেটস’র সাবেক মেয়র ছিলেন।

 

এদিকে শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) নির্বাচনে বড় ব্যবধানে জয়ের পর দেয়া বক্তব্য যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘৩১ জানুয়ারির মধ্যে ব্রেক্সিট সম্পন্ন করে আমি প্রমাণ করব, আপনাদের দেয়া ভোট ব্যর্থ হয়নি।’

 

উল্লেখ্য, আগামী বছরের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত ব্রেক্সিট কার্যকরের সময়সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। এর আগে বারবার চেষ্টা করেও পার্লামেন্টে বিল পাশ করাতে ব্যর্থ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। সেজন্যই বাধ্য হয়ে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দেন বরিস।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com