মসজিদ,গির্জা, মন্দির ও প্যাগোডায় হামলা ইসলামে নিষিদ্ধ

প্রকাশিত: ৮:১৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৭, ২০১৬

মসজিদ,গির্জা, মন্দির ও প্যাগোডায় হামলা ইসলামে নিষিদ্ধ

rajaul

সুরমা মেইল নিউজ  : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মো. ফয়জুল করীম বলেছেন, ইসলামে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের কোনই স্থান নেই, সম্পূর্ণই নিষিদ্ধ। আত্মঘাতী হামলা ইসলাম সমর্থন করে না। নিজেকে মানব বোমা বানিয়ে উড়িয়ে দেওয়া বৈধ নয়। মসজিদ তো নয়ই, গির্জা, মন্দির ও প্যাগোডাসহ অমুসলিমদের উপাসনালয়েও হামলা করা ইসলামে নিষিদ্ধ। জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টিকারী কোনও কর্মকান্ডই ইসলাম অনুমোদন করে না। যারা ইসলামের সঠিক বিধিবিধান পালন করে, তারা সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদকে প্রশয় দেয়না। বোমা মারা, গুলি করা, মুসলমান হয়ে মুসলমানকে হত্যা করা, ইসলাম ধর্মের মূল চেতনা পরিপন্থি। ইসলাম ধর্মে সন্ত্রাসী করা জঘন্য অপরাধ হিসেবে স্বীকৃত। এ দেশের আলেম সমাজকে ইসলামের শান্তির বাণী তুলে ধরে সন্ত্রাসীদের মুখোশ খুলে দিতে হবে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর কঠোর পদক্ষেপে এবং সাধারণ জনগণের অংশীদারিত্বে এদেরকে এখনই প্রতিহত করতে হবে।তিনি বলেন, হযরত মুহাম্মদ (সা.) মানব জাতিকে সত্য ও সুন্দরের পথ দেখিয়ে গিয়েছেন। আল­াহর হুকুম মেনে নবী করিম (সা:) এর দেখানো পথ অনুসরণ করলে একটি সুন্দর সমাজ গঠন সম্ভব। হযরত মুহাম্মদ (সা.) সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ নবী হিসেবে মানব জাতির জন্য রেখে গেছেন অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত।বৃহস্পতিবার গোয়াইনঘাট সদর পূর্বপালা জামে মসজিদ মাঠে বিশাল এক ওয়াজ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুফতী ফয়জুল করীম এসব কথা বলেন।তিনি বলেন, বিদায় হজ্বের ভাষণে তিনি মানবজাতিকে খুব অল্পকথায় যে দিক-নির্দেশনা দিয়েছেন তা ছিল সর্বকালের মানুষের জন্য মুক্তির একমাত্র পথ। মহানবীর দেখানো পথ অনুসরণ করে জীবন পরিচালনার জন্য তিনি সর্বস্তরের মুসলমানদের প্রতি আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, আমাদের কলবের খবর কিন্তু আল্লাহ রাখেন, সেদিকে আমাদের খবর নেই। কলব শুদ্ধ করতেই হবে। দলের জন্য, পীরের জন্য কাজ করলে চলবে না, আল্লাহর জন্য কাজ করতে হবে। ইমান ও নেক আমল ছাড়া কবরে গেলে উপায় নেই। দাওয়াত, তালিম, তাজকিয়া (আত্মশুদ্ধি) এবং অন্যায়ের বিরুদ্ধে জিহাদ এই চারটি বিষয় মুসলমানদের মধ্যে অবশ্যই থাকতে হবে।তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী আজ মুসলমানদের মাঝে ইসলামের পুনর্জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে, সমস্যা সংকুল পৃথিবীর শান্তিকামী মানুষ আজ বুঝতে সক্ষম হয়েছে তাদের শান্তি, কল্যাণ ইসলামেই রয়েছে। এ গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে ইসলামী সমাজ বিনির্মাণের আন্দোলনে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।লাফনাউট মাদ্রাসার শায়খুল হাদীস মাওলানা মাহমুদুল হাসান এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কাজির বাজার মাদ্রাসার শায়খুল হাদীস মাওলানা আহমদ আলী সাহেব, মাওলানা সাইদুর রহমান (নরসিংদী), মো. আব্দুল করিম প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

Flag Counter

আমাদের ভিজিটর সংখ্যা

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com