মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষন ধরা পড়লেন ওলামা লীগ নেতা

প্রকাশিত: ৮:১৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৬

মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষন ধরা পড়লেন ওলামা লীগ নেতা

51002
সুরমা মেইল নিউজ : বগুড়ায় মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষনের সময় হাঁতে-নাতে ধরা পড়েছেন স্থানীয় ওলামা লীগের এক নেতা। পরে তাঁকে মাদ্রসা ছাত্ররা আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। বুধবার দুপুর সোনাতলা ফাজিল মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ জানায়, দুপুরে অধ্যক্ষ ফজলুল করিম আলিম ক্লাসের এক ছাত্রীকে মাদ্রাসা ভবনের দ্বিতীয় তলায় ছাত্রীদের নামাজঘরে ডেকে নেন। এরপর জোরপূর্বক ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন তিনি। এ সময় ওই ছাত্রীর চিৎকারে মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষকরা গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে এবং অধ্যক্ষকে আটক করেন। এরপর বিকেল ৪টার দিকে পুলিশ গিয়ে তাঁকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পুলিশ জানায়, বুধবার দুপুরে ছাত্রীদের নামাজঘর থেকে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ফজলুল করিমকে আটক করে ছাত্ররা। এরপর পুলিশে খবর দিলে বিকেলে পুলিশ এসে তাঁকে আটক করে। আটক ফজলুল করিম সোনাতলা উপজেলা ওলামা লীগের সভাপতি। একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে বিয়ে করার অঙ্গীকার করে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন অধ্যক্ষ মাওলানা ফজলুল করিম। কিন্তু একটি মহল পুলিশকে খবর দিলে অধ্যক্ষকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সোনাতলা থানার ওসি আবদুল মোত্তালেব ওলামা লীগ সভাপতিকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, তাঁর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। সোনাতলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম বুলু জানিয়েছেন, অধ্যক্ষ ফজলুল করিম দলের কেউ নন। অপরদিকে ধর্ষকের বিচারের দাবিতে মাদ্রাসার শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকরা তাৎক্ষণিকভাবে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা অধ্যক্ষের সহযোগী হিসেবে পরিচিত মাদ্রাসার করনিকের বাড়িতে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। বিক্ষোভ মিছিল শেষে উপজেলা পরিষদ চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Flag Counter

আমাদের ভিজিটর সংখ্যা

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com