মাধবপুর হাসপাতালে ঔষধ সংকট, হতাশায় রোগীরা

প্রকাশিত: ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৮, ২০১৯

মাধবপুর হাসপাতালে ঔষধ সংকট, হতাশায় রোগীরা

৫০ শয্যা বিশিষ্ট হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ঔষধ সংকট তীব্র আকার ধারণ করেছে। গত ৪ মাস যাবত হাসপাতালে সরকারি ঔষধ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে করে গ্রামাঞ্চল থেকে প্রতিদিন আউট ডোর ইন ডোরের আগত প্রায় ৫ শতাধিক রোগী সরকারি ঔষধ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। প্যারাসিটামল, মেট্রোনিডাজল ও কলেরা স্যালাইন পর্যন্ত সরবরাহ নেই এ হাসপাতালে।

 

গত ৩১ অক্টোবর উপজেলা মাসিক সমন্বয় সভায় উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ঔষধ সংকটের বিষয়টি উপস্থাপন করলে উপজেলা থেকে ৩ নভেম্বর ১৬ হাজার ৫শ’ প্যারাসিটামল, ১শ’ ৪৪টি ৫০০এম এলক কলেরা স্যালাইন ও ১শ’ ৪৪টি ১০০০ এমএল কলেরা স্যালাইন সরবরাহ করা হয়। তাও শেষ পর্যায়ে।

 

এদিকে, আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে ও ভাটি আলের পানি নেমে যাওয়ায় বিভিন্ন স্থানে ডায়রিয়া রোগ দেখা দিয়েছে। প্রতিদিনই ডায়রিয়া চিকিৎসা নিতে এ হাসপাতালে রোগীর ভীড় দেখা দিয়েছে। কিন্তু সরকারি ভাবে রোগীদেরকে ঔষধ সরবরাহ করা যাচ্ছে না।

 

হাসপাতালের একটি সূত্র জানায়, হাসপাতালে ঔষধের স্টোরটি বর্তমানে ঔষধ শূন্য। কবে নাগাদ ঔষধ সরবরাহ করা হবে তা এখনো অনিশ্চিত। এতে করে রোগীদের মধ্যে হতাশা ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

 

ঔষধ অধিদপ্তর কর্তৃক জেলা বা উপজেলা পর্যায়ে ঔষধ সরবরাহ হবে এ সিদ্ধান্ত হীনতার কারণে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৪ মাস যাবত ঔষধ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। যে কারণে প্যারাসিটামল, কলেরা সেলাইনসহ জীবন রক্ষাকারি ঔষধ একেবারেই নেই।

 

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বুধবার (০৬ নভেম্বর) গিয়ে দেখা যায়, হাসপাতালে আগত আউট ডোর ইন ডোরের রোগীদের দুই একটি ঔষধ ছাড়া বাকি সব ধরণের সরকারি ঔষধ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কর্তব্যরত একজন চিকিৎসক জানান, হাসপাতাল থেকে জানানো হয়েছে কোন ধরনের ঔষধ ব্যবস্থাপত্রে লিখা যাবে না। কারণ ঔষধ নেই। এ জন্য ডাক্তাররা ব্যবস্থাপত্রে ঔষধ লিখে বাহির থেকে ঔষধ সরবরাহের পরামর্শ দিচ্ছেন।

 

গোয়ালনগর গ্রামের একজন জানান, তিনি ডাক্তার দেখিয়েছেন কিন্তু তার যে সমস্যা সেই রোগের ঔষধ হাসপাতালে নেই।

 

আরেকজন জানান, এতদুর থেকে গাড়ী ভাড়া দিয়ে ডাক্তার দেখাতে এসেছি। কিন্তু সরকারি ঔষধ না পেয়ে তিনি হতাশ।

 

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এইচএম ইশতিয়াক মামুন জানান, প্রতিদিন এ হাসপাতালে আউট ডোর, ইনডোর এ ৬ থেকে ৭শত রোগী চিকিৎসা নিতে আসে। কিন্তু লাষ্ট কোয়াটার (তিন মাস) যাবত হাসপাতালে ঔষধ সরবরাহ নেই। এতে করে স্টক শেষ হয়ে গেছে। এ অবস্থায় রোগীদের কে সরকারি ঔষধ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। ঔষধ অধিপ্তর কৃর্তক জেলা না উপজেলা পর্যায়ে ঔষধ সরবরাহ হবে এ সিদ্ধান্ত হীনতার কারণে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ মাস যাবত ঔষধ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। ঔষধ অধিদপ্তরের নীতিগত সিদ্ধান্ত না হওয়ায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

 

তিনি আরও জানান, মাধবপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ঔষধ সংকটের বিষয়টি নিরসনের জরুরি পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য বিভাগীয় ডিরেক্টর ও সিভিল সার্জন কে অবগত করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com