সবুজে ফিরছে জাফলং

প্রকাশিত: ১০:৪৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০২০

সবুজে ফিরছে জাফলং

নিজস্ব সংবাদদাতা, গোয়াইনঘাট : সিলেটের জাফলংয়ে বনের জমি উদ্ধার করে তাতে পুণরায় বৃক্ষরোপন করছে বনবিভাগ। প্রায় সাড়ে ২২ একর ভূমি দখলদারদের কাছ থেকে উদ্ধারের পর গাছ লাগানো হচ্ছে। এতে বনের জমি পূর্বাবস্থায় ফিরে আসবে বলে আশা সংশ্লিস্টদের। আগের মতো সবুজ রুপ পাবে জাফলং এমনটিও জানিয়েছেন তারা।

 

সিলেট জেলার মধ্যে বনের জমি সবচেয়ে বেশি বেদখলে রয়েছে গোয়াইনঘাট উপজেলায়। এই উপজেলার জাফলংয়ে বনের জমি দখল করে গড়ে ওঠেছে স্টোন ক্রাশার মেশিন, ডাম্পিং ইয়ার্ডসহ আরও নানা স্থাপনা। এসব স্থাপনা নির্মাণে নির্বিচারে কেটে ফেলা হয়েছে গাছপালা। তবে সম্প্রতি বনের জমি উদ্ধারে তৎপর হয়েছে বনবিভাগ।

 

সিলেট বনবিভাগের সারী রেঞ্জের আওতাধীন জাফলং বনভূমিতে সর্বমোট ৮ হাজার ২শত একর ভূমি রয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে অবৈধ দখলদারদের হাত থেকে সম্প্রতি ২২.৫ হেক্টর ভূমি উদ্ধার করে সেখানে গাছপালা লাগিয়ে বাগানে রূপান্তর করা হয়েছে। সারী রেঞ্জার মো. সাদ উদ্দিনের তত্বাবধানে ও জাফলং বনবিট ফরেষ্টার জহিরুল ইসলামের নেতৃত্বে বনকর্মিদের উদ্যোগে সৃজিত বাগানে লাগানো হয়েছে নানা জাতের শত শত গাছপালা।

 

স্বল্প মেয়াদী আর শুভাবর্ধনকারী এ দুই শ্রেণির গাছ এসব বাগানে লাগানো হয়েছে। ১৫ হেক্টর ভূমিতে স্বল্প মেয়াদী বাগানে আকাশমণি, মেনজিয়াম, মেহগনি, অর্জুন, জাম, কদমজাত গাছপালা অপরদিকে সাড়ে ৭ হেক্টর ভূমিতে শুভাবর্ধনকারী বাগানে লাগানো হয়েছে কৃঞ্চচুড়া, রাধাচূড়া, শিমুল, বকুল, জারুল ও সোনালু জাতের চারা। বনবিভাগের এই সৃজিত বাগানে নিরাপত্তা বেষ্টনীর জন্য বাঁশের বেড়া ও গবাদি পশু থেকে রক্ষায় বনপ্রহরীদের সমন্বয়ে তদারকি চলছে।

 

বনবিভাগের উপকারভোগি স্থানীয় আয়নাল মিয়া, ফালানি বেগম, নুর জাহান, রফিক মিয়া, ইমান আলী বলেন, অবৈধ ব্যবসায়ী আর গাছ চোরদের সরিয়ে বনবিভাগের ভূমি উদ্ধার হওয়ায় নতুন বাগান লাগিয়ে বনায়ন বৃদ্ধির কারণে আগেরকার সবুজ অরণ্যের চিত্র ফুটে উঠছে। জাফলং বনভূমি ধ্বংসকারী এ চক্রের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে বনভূমির অপরাপর বেদখলকৃত ভূমি উদ্ধারে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান তারা।

 

এব্যাপারে কথা হলে বনবিভাগের জাফলং বিট অফিসার জহিরুল ইসলাম জানান, জাফলং বনবিটের ভূমি ও বনায়ন রক্ষায় আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে আসছি। অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদসহ জড়িতদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। বনের ভূমি ও সৃজিত বনায়ন রক্ষায় যে কোন অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদের ভূমিকা আগেকার ন্যায় অব্যাহত থাকবে।

 

সারী রেঞ্জার মো. সাদ উদ্দিন জানান, জাফলং বনবিটের ভেতর অবৈধ দখলদার চক্রকে সরিয়ে বনের ভূমি উদ্ধার ও বাগান তৈরির মাধ্যমে বনায়ন বৃদ্ধিতে আমাদের উদ্যোগ অব্যাহত আছে। বনের ভূমিতে থাকা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদসহ অবশিষ্ট ভূমিও উদ্ধার করা হবে।

 

গোয়াইনঘাটের উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নাজমুস সাকিব বলেন, সিলেটের জাফলং বনভূমির বেদখল হওয়া ভূমি উদ্ধারে ইতিপূর্বে উপজেলা প্রশাসন তরফে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। বনভূমি রক্ষাকরণে, বনায়নের মাধ্যমে পুরো জাফলং বনভূমিতে অতীতের ন্যায় সবুজায়নে তাদের যে কোন ইতিবাচক কর্মকাণ্ডে উপজেলা প্রশাসনের সর্বাত্মক সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Flag Counter

আমাদের ভিজিটর সংখ্যা

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com