সাবেক এমপি ইলিয়াস নিখোঁজের ৪ বছর আজ

প্রকাশিত: ২:৫৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০১৬

সাবেক এমপি ইলিয়াস নিখোঁজের ৪ বছর আজ

download
সুরমা মেইল নিউজ : বিএনপির কেন্দ্রীয় সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট-২ আসনের সাবেক এমপি এম. ইলিয়াস আলী নিখোঁজের ৪ বছর পূর্ণ হচ্ছে আজ। ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাতে ঢাকার বনানী ২ নাম্বার রোড থেকে ব্যক্তিগত গাড়ীচালক আনসার আলীসহ ‘নিখোঁজ’ হন তিনি। এরপর দেশব্যাপী গড়ে উঠে কঠোর আন্দোলন। ইলিয়াসের ভালবাসায় প্রাণ দেন বিশ্বনাথের তিন বিএনপির কর্মী। ফিরে পাওয়ার আন্দোলন করতে গিয়ে হামলা-মামলা শিকার হন হাজার হাজার বিএনপি-জামায়াত কর্মী ও সাধারণ মানুষ।

২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাতে রাজধানীর বনানী থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়েছিলেন বিএনপির তৎকালীন সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি এম ইলিয়াস আলী। আজ তাঁর নিঁখোজের চার বছর পূর্ণ হলো। চার বছরও কোনো খোঁজ মিলেনিা ইলিয়াস আলীর।

বিএনপি ও ইলিয়াস পরিবারের দাবি, সরকার ইলিয়াস আলীকে গুম করে রেখেছে। ইলিয়াস এখনো বেঁচে আছেন এমনটিও বিশ্বাস তাঁর পরিবার ও অনুসারীদের। তবে সরকারের পক্ষ থেকে ইলিয়াস আলীর নিখোঁজের ব্যাপারে কিছুই জানা নেই বলে দাবি করা হচ্ছে।

নিখোঁজের পর প্রথম কিছুদিন ইলিয়াস আলী উদ্ধারে দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালালেও কয়েক মাস পরই থেমে যায় সব অভিযান। ইলিয়াস আলী খোঁজে এখন আর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো তৎপরতা নেই।

এদিকে, ইলিয়াসকে অনেকটা বাতিলের খাতায় ফেলে দিয়েছে তাঁর দল বিএনপিও। নিখোঁজের পর দীর্ঘদিন পর্যন্ত ইলিয়াস আলী বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। অনুপস্থিত জেনেও ইলিয়াসের পদে কোনো পরিবর্তন আনা হয়নি।

তবে সর্বশেষ কাউন্সিলে ইলিয়াসের বদলে ডা. সাখাওয়াত হোসেন জীবনকে সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক করে বিএনপি। এরআগেই সিলেট জেলা সভাপতির পদ থেকেও সরানো হয় ইলিয়াস আলীকে। ফলে বিএনপি নেতারাই এখন প্রায় ভুলে যাচ্ছেন নিঁখোজ এই নেতাকে।

সম্প্রতি সিলেট বিএনপির পক্ষ থেকে ইলিয়াস আলীর সন্ধান দাবিতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এছাড়া ইলিয়াস মুক্ত সংগ্রাম পরিষদও এ দাবিতে বিভিন্ন সময় নানা কর্মসূচী পালন করে। তবে এসব কর্মসূচী আগের মতো আর তেমন জোরালো নয়।

ইলিয়াসের পরিবারর দাবি, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো সংস্থার সদস্যরা ইলিয়াস ও তার চালককে গাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় বনানী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছিলেন ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসীনা রুশদীর লুনা। তবে তাঁর নিঁখোজের কোনো ক্লু এখন পর্যন্ত উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসীনা রুশদী লুনা বলেন- আমি বিশ্বাস করি ইলিয়াস আলী বেঁচে আছেন। সরকারই তাকে লুকিয়ে রেখেছে। তাই সরকারের কাছে ইলিয়াস আলীকে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানাই।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com