সিলেটে লন্ডন ফেরত নারীকে হয়রানি, ২ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

প্রকাশিত: ১:৩১ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১, ২০২১

সিলেটে লন্ডন ফেরত নারীকে হয়রানি, ২ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে লন্ডন প্রবাসী এক নারীকে হয়রানির অভিযোগে এক কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত ও একজনকে ঢাকায় বদলি করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ। তবে তাদের নাম প্রকাশ করেনি সংশ্লিষ্টরা।

 

শনিবার (৩১ জুলাই) এ ঘটনায় দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে বিমান কর্তৃপক্ষ। বিমান বাংলাদেশে এয়ারলাইন্সের গঠিত কমিটি তাদের বরখাস্ত করে। এর আগে বুধবার (২৮ জুলাই) বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ওই ব্রিটিশ নাগরিক বিমান কর্মকর্তাদের অসহযোগিতা ও অসৌজন্যমূলক আচরণের কারণে নির্ধারিত ফ্লাইটে যুক্তরাজ্যে যেতে পারেননি।

 

শনিবার (৩১ জুলাই) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স সিলেটের স্টেশন ম্যানেজার চৌধুরী মো. ওমর হায়াত।

 

তিনি জানান, এ ঘটনায় ঢাকায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা প্রাথমিকভাবে ২ জনকে বরখাস্ত করেছেন। পূর্ণ তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী সময়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সিলেটের স্টেশন ম্যানেজার চৌধুরী মো. ওমর হায়াত বলেন, আমরা শুক্রবার (৩০ জুলাই) ওই নারীর বাসায় গিয়ে তাকে সহমর্মিতা জানিয়ে এসেছি। এছাড়া আগামী ফ্লাইটে তিনি যাতে সুন্দরভাবে যেতে পারেন তার জন্য আমরা সব ধরনের সহযোগিতা করব বলে তাকে আশ্বস্ত করেছি।

 

গত বুধবার সিলেট থেকে লন্ডনের সরাসরি ফ্লাইট বাংলাদেশ বিমানের বিজি-২০১ এর যাত্রী ছিলেন জামিলা চৌধুরী। তিনি ওইদিন যুক্তরাজ্যে যেতে পারেননি ওসমানী বিমানবন্দরের কিছু কর্মকর্তার অসৌজন্যমূলক ও অন্যায় আচরণের কারণে।

 

জামিলা চৌধুরীর অভিযোগ, সঙ্গে থাকা মালামালের ওজন বেশি এমন অজুহাতের সূত্র ধরে বারকোডযুক্ত লোকেটর ফর্মের প্রিন্ট কপি বাধ্যতামূলক বলে দাবি করেন বিমানের লোকজন। এ নিয়ে খানিকক্ষণ বাক-বিতণ্ডার পর জামিলা চৌধুরী বিমানবন্দরের নির্ধারিত কাউন্টারে লোকেটর ফর্ম প্রিন্ট করার জন্য যান। কিন্তু সেখানে দীর্ঘ লাইন থাকায় তা প্রিন্ট করাতে পারেননি।

 

জামিলা চৌধুরী বলেন, এ ব্যাপারে আমি উপস্থিত অন্যান্য কর্মকর্তাকে অনুরোধ করি, কিন্তু কেউ আমাকে সাহায্য করেনি। বিমানবন্দরে নিজের অভিযোগ জানাতে চাইলেও তার অভিযোগ কেউ গ্রহণ করেনি।

 

এ বিষয়ে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের বাংলাদেশ বিমানের স্টেশন ব্যবস্থাপক চৌধুরী মো. ওমর হায়াত বলেন, লন্ডন ফেরত এক যাত্রীকে অসহযোগিতার কারণে শনিবার (৩১ জুলাই) দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তাদেরকে ঢাকায় গিয়ে রিপোর্ট করার জন্য বলা হয়েছে। কিন্তু অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট বন্ধ নিয়ে বিমানের নির্দেশনা থাকায় তারা ঢাকায় যেতে পারেননি।

 

তিনি বলেন, ঘটনাটি খতিয়ে দেখতে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলইন্স কর্তৃপক্ষ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। তদন্ত কমিটির সদস্যরা সিলেট এসে ঘটনাটি খতিয়ে দেখবেন। এছাড়া গত ২৮ জুলাই ওই নারীর সঙ্গে সৃষ্ট ঘটনার জন্য শুক্রবার (৩০ জুলাই) সন্ধ্যায় তার বাসায় গিয়ে সান্ত্বনা দিয়ে বলেছি, আগামী ৪ আগস্ট যে ফ্লাইট আছে সেই ফ্লাইটে যেতে তাকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com