স্মরণকালের ভুমকম্প :সিলেটে বহুতল মার্কেট ধস, আহত ৩০

প্রকাশিত: ২:০১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৪, ২০১৬

স্মরণকালের ভুমকম্প :সিলেটে বহুতল মার্কেট ধস, আহত ৩০

Kanij-Plaza
ফয়সল আহমদ : স্মরণকালের ভূমিকম্পে সিলেটে একটি বহুতল ভবনের দেয়াল ধসে আহত হয়েছেন ৮ জন,এছাড়া আতঙ্কে বাসা থেকে বের হতে গিয়ে আহত হয়েছেন আরো ২২ জন। সোমবার ভোর ৫টা ৫ মিনিটের দিকে এ ভূকম্পন অনুভূত হয়। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৬.৭, এর উৎপত্তিস্থল ছিল ভারতের মণিপুরে ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৬০ কিলোমিটার গভীরে। ভূমিকম্পের তীব্রতায় সিলেট নগরজুড়ে আতঙ্ক দেখা দেয়। ভোরে ভূমিকম্পের সময় লোকজন ঘরবাড়ি ছেড়ে রাস্তায় নেমে আসেন। লোকজন বহুতল ভবন ছেড়ে খোলা আকাশের নিচে নেমে আসেন। অনেক স্থানে আতঙ্কগ্রস্থ লোকজন কান্নাকাটি শুরু করেন। সরেজমিন সিলেট শহর ঘুরে দেখা গেছে, সোমবার ভোর ৫টা ৫মিনিটে ভূমিকম্পে সিলেট নগরীর জিন্দাবাজারের বহুতল কানিজ প্লাজা মার্কেটের ১১ তলা ভবনের ৯ম তলার দেয়াল ধ্বসে পার্শ্ববর্তী বাসার ৮ জন আহত হয়েছেন। দেয়ালটি ধসে পার্শ্ববর্তী পলাশী ৩ নম্বর টিনশেড বাসায় এ ঘটনাটি ঘটেছে। আহতদের গুরুতর অবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন জিন্দাবাজার এলাকার বাসিন্দা সাজিদুল ইসলাম, ফরিদুল ইসলাম ফরিদ, শিল্পী বেগম, রোকশানা আক্তার। এরমধ্যে ২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এছাড়া ভূকম্পনে সিলেট নগরের মীরের ময়দান এলাকার একটি বাসা দেবে গেছে ও শাহজালাল উপশহর এলাকার জি-ব্লকের একটি বাসার তিনটি স্থানে ফাটল দেখা দিয়েছে। সিলেট নগরীর জিন্দাবাজারে কানিজপ্লাজার দেয়াল ধ্বসে দুর্ঘটনা কবলিত বাসাটি পরিদর্শন করেছে সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) একটি টিম। সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে সিসিক কর্মকর্তাদের টিম দুর্ঘটনা কবলিত বাসাটি পরিদর্শনে যান। পরিদর্শন শেষে সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবিব বলেছেন, কানিজ প্লাজার নির্মাণ কাজ সঠিক নিয়মে চলছে কিনা এটি খতিয়ে দেখা হবে। তাছাড়া অন্যান্য আনুষঙ্গিক অনুমোদন তাদের রয়েছে কি না এটাও খতিয়ে দেখা হবে।এবং কানিজ প্লাজার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে সিসিক। প্রাথমিকভাবে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি মার্কেট কর্তৃপক্ষের গাফিলতি রয়েছে। তারা নির্মাণ কাজ চলাকালিন সময়ে পাশের বাসার বাসিন্দাদের নিরাপত্তার ব্যাপারে উদাসীন ছিলেন। বাসার স্বত্বাধিকারি ফরিদুল ইসলাম ফরিদ বলেন, কানিজ প্লাজার কর্তৃপক্ষকে বারবার বলা হয়েছে আমাদের বাসার বাসিন্দাদের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। কিন্তুমাকেট কর্তৃপক্ষ কর্ণপাত করেননি, বারবার এটি এড়িয়ে গেছেন। আর এ কারণে আজ আমার পরিবারের সদস্যরা গুরুতর ভাবে আহত।এদিকে সিলেট নগরী ও শহরতলীতে ৩২ জন আহত হয়েছেন। বেশির ভাগই তাড়াহুড়ো করে ঘর থেকে বের হতে গিয়ে আহত হয়েছেন। আহতরা সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। কয়েকজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। সিলেট ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার জাবেদ হোসেন মো. তারেক কে বলেন, কানিজ প্লাজার দুর্ঘটনা ছাড়া সিলেটে আর বড় কোন দুর্ঘটনা নেই।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

Flag Counter

আমাদের ভিজিটর সংখ্যা

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com