৯/১১ সারা বিশ্বকে বদলে দেওয়ার দিনের নাম

প্রকাশিত: ৫:১৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৫

৯/১১ সারা বিশ্বকে বদলে দেওয়ার দিনের নাম

সুরমা মেইলঃ ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বরের কথা। আল কায়েদা জঙ্গি সংগঠনের সন্ত্রাসী হামলার কারণে ইতিহাসে কালোতম অধ্যায়ে স্থায়ীভাবে ঢুকে গেছে এ তারিখ। শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) বিভিন্ন আয়োজনে দিনটিকে স্মরণ করছে যুক্তরাষ্ট্রবাসী। এরই অংশ হিসেবে টুইন টাওয়ার (গ্রাউন্ড জিরো) এলাকার আকাশ উদ্ভাসিত হয়ে ওঠে আতশবাজির আলোয়। এছাড়া দিনব্যাপী বিভিন্ন স্থানে আলোক ও চিত্র প্রদর্শনীসহ আয়োজন করা হয়েছে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের।

 

দিনটা ছিল মঙ্গলবার। স্থানীয় সময় সকালে ক্যালিফোর্নিয়াগামী চারটি যাত্রীবাহী বিমান হাইজ্যাক করে আল কায়েদার ১৯ সন্ত্রাসী। এগুলো বোস্টন, ম্যাসাচুসেটস, নিউ জার্সি ও ওয়াশিংটন ডিসি থেকে উড্ডয়ন করে। চারটি বিমানের মধ্যে দু’টো বোয়িং-৭৫৭ সিরিজের ও দু’টো বোয়িং-৭৬৭ সিরিজের।

হাইজ্যাক করা আমেরিকান এয়ারলাইনস ফ্লাইট-১১ ও ইউনাইটেড এয়ারলাইনস ফ্লাইট-১৭৫ নিয়ে আত্মঘাতী হামলাকারীরা সরাসরি হামলা চালায় নিউইয়র্কে অবস্থিত ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের উত্তর ও দক্ষিণ ভবনে। এক ঘণ্টা ৪২ মিনিটের মধ্যে ১১০ তলার ভবন দু’টি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়। এছাড়া ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার কমপ্লেক্সে অবস্থিত ৪৭ তলার ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার টাওয়ারও ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়। এছাড়া বিধ্বস্ত হয় আশেপাশের আরও দশটি সুউচ্চ ভবন।

হাইজ্যাক করা তৃতীয় প্লেন ‘আমেরিকান এয়ারলাইনস ফ্লাইট-৭৭’ নিয়ে সন্ত্রাসীরা হামলা চালায় ভার্জিনিয়ার পেন্টাগনে। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সদর দফতর এটি। হামলায় ভবনের পশ্চিম দিকের অংশ আংশিক বিধ্বস্ত হয়। চতুর্থ প্লেন ‘ইউনাইটেড এয়ারলাইনস ফ্লাইট-৯৩’ পেনসিলভানিয়ায় শ্যাঙ্কস ভিলের কাছে একটি খোলা জায়গায় বিধ্বস্ত হয়।

এসব ঘটনায় ওই ১৯ সন্ত্রাসীসহ দুই হাজার ৯৯৬ জন মানুষের প্রাণহানী হয়। সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি হয় ১০ বিলিয়ন ডলারের (৭৭ হাজার ৮৯৯ কোটি টাকা)। মার্কিন ইতিহাসে এ ঘটনা সবচেয়ে প্রাণঘাতী। দেশটির অগ্নিনির্বাপক সংস্থা ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর জন্যও এ ঘটনা সবচেয়ে প্রাণঘাতী। সংস্থা দু’টির যথাক্রমে ৩৪৩ জন ও ৭২ জন প্রাণ হারান এদিন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

Flag Counter

আমাদের ভিজিটর সংখ্যা

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com