লন্ডনের রাস্তায় ‘সুবহানাল্লাহ’ বাস!

প্রকাশিত: ২:২৪ অপরাহ্ণ, মে ৯, ২০১৬

লন্ডনের রাস্তায় ‘সুবহানাল্লাহ’ বাস!

2016_05_09_12_13_38_56qUqkkOecPd8pBisb73dodGIihkER_original

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আর মাত্র ক’দিন বাকি। এরপর লন্ডনের রাস্তায় দাপিয়ে বেড়াবে সুবহানাল্লাহ পোস্টার সম্বলিত বাস। শুধু লন্ডন নয়, যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম, ম্যানচেস্টার, লেইসেস্টার ও ব্রাডফোর্ড শহরগুলোতেও এ ধরনের বাসের দেখা মিলবে।

পবিত্র রমজানে সিরিয়া যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার জন্য তহবিল সংগ্রহে দেশ জুড়ে প্রচারণা শুরু করেছে ব্রিটিশ মুসলিমরা। ওই প্রচারণার অংশ হিসেবেই তারা সেখানকার যাত্রীবাহী বড় বড় বাসগুলোতে সুবহানাল্লাহসহ (সকল পবিত্রতা আল্লাহর) বিভিন্ন আরবি শব্দ লেখা পোস্টার সেঁটে দেবে বলে দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট পত্রিকাটি জানিয়েছে।

উদ্যোক্তাদের আশা, অভিনব এই প্রচারণার মাধ্যমে তারা মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের তহবিল সংগ্রহ করতে পারবেন। দেশটিতে রমজান শুরু হচ্ছে ৭ জুন। এই মাসেই মুসলিম ধর্মাবলম্বিরা তাদের আয়ের আড়াই ভাগ জাকাত হিসেবে গরীব দুখীদের জন্য দান করে থাকেন। ইসলাম ধর্মের পাঁচ স্তম্ভের অন্যতম হচ্ছে জাকাত।

মুসলিম তহবিল সংগ্রহকারীদের ধারণা, তাদের এই উদ্যোগ সিরিয়া যুদ্ধের কারণে ভয়াবহভাবে মানবিক বিপর্যয়ের শিকার লাখ লাখ মানুষ ইতিবাচক প্রচারণার সুফল পাবে।

শুধু তাই নয়, এটি ব্রিটেনের মুসলিম সম্প্রদায়ের যুবকদের চরমপন্থিদের সঙ্গে যোগ দেয়া থেকেও বিরত রাখবে। যুক্তরাজ্যে এই তহবিল সংগ্রাহক কর্মকাণ্ডের পরিচালক ইমরান মাদ্দেন বলেছেন, এক অর্থে আপনি একে পরিবেশ পরিবর্তনের প্রচারণা হিসেবেও উল্লেখ করতে পারেন। কারণ আমরা চাইছি এই দেশে মুসলিম সম্পদায় সম্পর্কে যে নেতিবাচক ধারণা তৈরি হয়েছে তা বদলাতে।

গোটা রমজান জুড়ে তারা ১০ কোটি পাইন্ড (১৪ কোটি ৪২ লাখ ৪৪ হাজার ৫০০শ মার্কিন ডলার) সংগ্রহ করতে পারবেন বলে তিনি আশা করছেন। আগামী ২৩ মে থেকে সুবহানাল্লাহ লেখা ৬৪০টি বাস গোটা যুক্তরাজ্য জুড়ে ঘুরে বেড়াবে। সম্প্রতি পাকিস্তান বংশোদ্ভূত সাদিক খান লন্ডনের প্রথম মুসলিম মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর তাদের উৎসাহ উদ্দীপনায় জোয়ার এসেছে। ধারণা করা হয়ে থাকে, লন্ডনের মোট জনসখ্যার শতকরা ৫০ ভাগই হচ্ছে মুসলিম। তবে ওই শহরে সাধারণতঃ কোনো যানবাহনে এ ধরনের প্রচারণা চোখে পড়ে না। কেননা সেখানে রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য যানবাহন বা স্থাপণায় এ ধরনের পোস্টার লাগানো আইনত নিষিদ্ধ। তবে ধর্মীয় সম্পদায়গুলোর কথা ভিন্ন। ধর্ম প্রচারের জন্য তারা এ জাতীয় প্রচারণা চালাতেই পারেন, যতক্ষণ না যেটা ‘গুরুতর অপরাধ’ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। এখানে প্রসঙ্গক্রমে খিস্টানদের একটি ‘শুদ্ধি’ প্রচারনার কথা উল্লেখ করা যায়। ২০১২ সালে সমকামীদের ‘প্রভাবিত’ করার অভিযোগ ওঠার পর খ্রিস্টানদের ওই দাতব্য প্রতিষ্ঠানের প্রচারণা নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। এর আগে ২০০৯ সালে ব্রিটিশ হিউমেনিস্ট অ্যাসোসিয়েশন-র একটি নাস্তিক্যবাদী প্রচারণাও নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। তারা তখন দেশ জুড়ে ‘কোনো ঈশ্বর নেই। তাই সকল দুশ্চিন্তা বাদ দিয়ে আনন্দের সঙ্গে বাঁচুন’ প্রচারণা শুরু করেছিল। কিন্তু ধর্মভীরু খ্রিস্টানদের কাছ থেকে অভিযোগ আসার পরই ওই সংস্থার প্রচারণায় বাদ সাধে প্রশাসন। এর জবাবে মাত্র এক মাস পরেই ‘ঈশ্বর আছে’ প্রচারণা শুরু করেছিল খিস্টান গোষ্ঠীগুলো। তবে ব্রিটিশ মুসলিমদের এই তহবিল সংগ্রহ প্রচারণায় এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তাই গোটা রমজান জুড়ে লন্ডনসহ বড় বড় শহর দাপিয়ে বেড়াবে ‘সুবনাল্লাহ ’ লেখা বাসগুলো।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com